• শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১:৩৯ পূর্বাহ্ন |

বদরগঞ্জে স্ত্রী ও পুত্রের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা

mamlaবদরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি: রংপুরের বদরগঞ্জে ভরণ পোষণ দাবী করায়, মোশারোফ (৫২) নামে এক পাষন্ড স্বামী তার স্ত্রী ও পুত্রের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্বামীর মিথ্যা মামলার বেড়াজালে পড়ে, নুর বেগম তার পুত্র সন্তান নিয়ে রেল বস্তিতে অর্ধাহারে অনাহারে মানবেতর জীবন যাপন করছে। ঘটনাটি ঘটেছে পৌরশহরের মুন্সিপাড়া রেলের ধার মহল্লায়।
মামলা সুত্রে ও শুক্রবার সরেজমিনে জানা যায়, পৌরশহরের বালুয়াভাটা মহল্লার দলিল লেখক মোশারোফ হোসেন প্রায় ১০ বছর আগে তার প্রথম স্ত্রীর অসুস্থ্যতার কথা বলে, একই এলাকার মুন্সিপাড়া রেলের ধার বস্তির স্বামী পরিত্যাক্ত অসহায় নুর বেগমকে বিয়ে করেন। বিয়ের করে নুর বেগমকে মোশারোফ তার বাড়ীতে তুলে না নিয়ে, তাকে তার রেলের ধারের ঝুঁপড়িতে রেখে সংসার করে আসছিল। তাদের সংসারের একটি পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। এর কিছুদিন পর মোশারোফ তার স্ত্রী নুর বেগমের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। পরে নুর বেগম তার স্বামীর সাথে যোগাযোগের চেষ্ঠা করে ব্যার্থ হলে, তার স্বামীর বালুয়াভাটার বাসায় যান। সেখানে নুর বেগমকে দেখে, স্বামী মোশারোফ ও তার বড় স্ত্রী ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে মারপিট করে বাড়ী হতে তাড়িয়ে দেয়। এ ঘটনার পর থেকে নুর বেগম স্বামীর কর্মস্থলে গিয়ে তার কাছে ভরণ পোষের দাবী জানায়। এতেও ওই পাষন্ড স্বামী কোন কর্ণপাত করেননি। ঘটনার দিন (২০ মার্চ ২০১৪ইং) বৃহস্পতিবার নুরবেগম স্বামীর কর্মস্থল সাব রেজিস্ট্রার্ড অফিসে গিয়ে তার কাছে খোর পোষের দাবী করেন। এসময় মোশারোফ উত্তেজিত হয়ে মারপিটের উদ্যত হয় এবং অশ্লীল ভাষায় তাকে গালমন্দসহ বিভিন্ন ধরনে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাড়িয়ে দেন। তিনি এতেও থেমে ছিলেন না, গত (৩০মার্চ২০১৪ইং) রবিবার স্বামী মোশারোফ হোসেন তার স্ত্রী পুত্রসহ ৪জনের বিরুদ্ধে রংপুরের আদালতে বাদী হয়ে ১ লাখ টাকার চাঁদাবাজির মামলা করেন।
মোশারোফ তার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি ওই স্ত্রীকে ইতিপৃর্বে তালাক দিয়েছি এরপরও সে আমার কাছে ভরণপোষের দাবী করে আসছে। এ কারনেই আমি তার বিরুদ্ধে মামলা করেছি।
গৃহবধু নুর বেগম বলেন, আমার স্বামীর কাছে খোরপোষের খরচ চাওয়ায় উল্টো আমার ও আমার পুত্রের বিরুদ্ধে মিথ্যা চাঁদাবাজির মামলা দিয়েছে। আমার অসহায়তার সুযোগ নিয়ে আমার স্বামী দীর্ঘদিন হতে আমার ওপর বিভিন্ন ধরনে নির্যাতন চালিয়ে আসছে।
বদরগঞ্জ থানার ইনচার্জ (ওসি) জাহিদুর রহমান চৌধুরী বলেন, মামলাটি তদন্তে রয়েছে। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ