• শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৩:৫৯ পূর্বাহ্ন |

৪৩ বছর ধরে শরীরে বহন করেছিল হানাদার বাহিনীর গুলি

Hatibandha Woman Picহাসান মাহমুদ, লালমনিরহাট: অবশেষে ৪৩ বছর পর নিজের শরীরে থাকা গুলি মুক্ত হলেন লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার মোমেনা বেওয়া (৫৮)। মঙ্গলবার বিকেলে রংপুর মেডিকেলে অস্ত্রপাচারের পর গুলিমুক্ত হলেন তিনি। এ ঘটনায় মোমেনার গ্রামের বাড়িতে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। দীর্ঘ সময় ধরে মোমেনার শরীরে থাকা গুলিটি টিউমার হিসেবে জেনে এসেছেন ।
জানা গেছে, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালিন সময়ে বাবার হাত ধরে পালিয়ে যাচ্ছিল তখনকার পনের বছর বয়সী মোমেনা। এমন সময় হাতীবান্ধার তালেব মোড় এলাকায় পাকা হানাদার বাহিনীর গুলি এসে লাগে শরীরে। তৎকালীন উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থা না থাকায় গ্রামের পল্লী চিকিৎসক আঃ গফুরের প্রাথমিক চিকিৎসায় সুস্থ্যতা হন তিনি। কিন্তু শরীরের ভিতরেই থেকে যায় গুলির অংশটুকু। যুদ্ধ শেষ হয়। পাক হানাদার পালিয়ে যায়। স্বাধীন হয় দেশ। কিন্তু সেই হানাদার বাহিনীর দোসরদের চিহৃ রয়ে যায় তার শরীরে। এভাবেই কেটে যায় মোমেনার দীর্ঘ তেতাল্লিশটি বছর।
লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার মধ্য গড্ডিমারী গ্রামের মৃত বাবর আলীর স্ত্রী মোমেনা বেওয়া জানান, মাঝে মাঝে ব্যাথা অনুভব হলেও অর্থিক দৈন্যতায় সঠিক চিকিৎসা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে পারেননি তিনি। বয়সের ভাড়ে ন্যুয়ে পড়া মোমেনা  ক্রমান্বয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে এলাকাবসির সহায়তায় গত ০৭ এপ্রিল রংপুর নিরাময় কিনিকে এসে ডাক্তার বিমল চন্দ্রের শরনাপন্ন হন। সেখানে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর মোমেনার গলার বাম দিকে ক্ষতস্থানের ভিতরে আটকে পরা গুলির সন্ধান পান চিকিৎসক। পরে মঙ্গলবার বিকেলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অপারেশনের মধ্য দিয়ে গুলিটি বের করা। বর্তমানে তিনি রংপুর মেডিকেলের তৃতীয় তলায় ১৬ নং ওয়ার্ডের ৩৬ নং বেডে চিকিৎসাধাীন।
মোমেনার ছোট বোন মনোয়ারা জানান, মাঝে মাঝে ব্যাথা অনুভব হলে গ্রামের চিকিৎসকের পরামর্শে ব্যাথা নাশক ট্যাবলেট খেতেন তিনি।  ক্রময়শই বয়সের ভারে ব্যাথা বাড়তে থাকলে ধার-দেনা করে অপারেশনের ব্যবস্থা করা হয়।
এ ব্যাপারে চানতে চাইলে, চিকিৎসক বিমল চন্দ্র জানান, অপারেশন করে গুলি বের করা হয়েছে। আশা করছি তিনি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠবেন। এদিকে যুদ্ধের তেতাল্লিশ বছর পর গুলি বের হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে মোমেনার নিজ গ্রাম ও রংপুর মেডিকেলেও চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ