• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৭:৫৫ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :
পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট খোলা বায়েজিদ আটক নীলফামারী জেলা শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলামের শ্বশুড়ের ইন্তেকাল সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের গ্রন্থাগারের মূল্যবান বইপত্র গোপনে বিক্রি ফেনসিডিলসহ সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা গ্রেপ্তার এ সেতু আমাদের অহংকার, আমাদের গর্ব: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারতে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে ৮ দিন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন বাংলাদেশের জন্য এক গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক দিন: প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যেতে মানতে হবে যেসব নির্দেশনা সৈয়দপুরে বিস্কুট দেয়ার প্রলোভনে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ গণমানুষের সমর্থনেই পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

আজ আহসানউল্লাহ মাষ্টারের ১০ম শাহাদাৎবার্ষিকী

Ahasanসিসি নিউজ: আজ বুধবার বিশিষ্ট শ্রমিক নেতা, শিক্ষক ও মুক্তিযোদ্ধা শহীদ আহসানউল্লাহ মাষ্টারের ১০ম শাহাদাৎ বার্ষিকী । এ উপলক্ষে ঢাকা ও গাজীপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক কর্মসুচি গ্রহণ করা হয়েছে। কর্মসুচির মধ্যে রয়েছে সকালে পূবাইল ইউনিয়নের হায়দরাবাদ গ্রামে শহীদ আহসানউল্লাহ মাষ্টারের কবরে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ। পবিত্র কোরআনখানি, কালো ব্যাচ ধারণ, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল, তবারক বিতরণ, স্মরণসভা, স্মরণিকা প্রকাশ ও আলোচনা সভা। এদিকে বিকালে টঙ্গী থানা আওয়ামী লীগ আহসানউল্লাহ মাষ্টারের স্মরণে নোয়াগাঁও এম এ মজিদ মিয়া উচ্চবিদ্যালয় মাঠে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে।
আহসানউল্লাহ মাষ্টার গাজীপুর-২ (গাজীপুর সদর-টঙ্গী) আসন হতে ১৯৯৬ ও ২০০১ সালে দুবার সংসদ সদস্য, ১৯৯০ সালে গাজীপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এবং ১৯৮৩ ও ১৯৮৭ সালে দু’দফা পূবাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তিনি আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য, শিক্ষক সমিতিসহ বিভিন্ন সমাজ সেবামূলক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন। আহসানউল্লাহ মাষ্টার শ্রমিক লীগের কার্যকরী সভাপতি ও সাধারণ সস্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।
২০০৪ সালের ৭ মে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের মদদ পুষ্ট একদল সন্ত্রাসী টঙ্গীস্থ নোয়াগাঁও এম এ মজিদ মিয়া উচ্চবিদ্যালয় মাঠে এক জনসভায় প্রকাশ্যে দিবালোকে গুলি করে আহসানউল্লাহ মাষ্টারকে হত্যা করে। ২০০৫ সালের ১৬ এপ্রিল দ্রুত বিচার আইনে এ হত্যা মামলার রায় হয়। রায়ে প্রধান আসামী বিএনপি নেতা নূরুল ইসলাম সরকারসহ ২২ জনকে ফাঁসি ও ৬ জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান করে আদালত। সেই সাথে ওই মামলায় ২৮জনের মধ্যে ২জন খালাস পান। এরমধ্যে প্রধান আসামীসহ ১৭ জন দেশের বিভিন্ন কারাগারে বন্দী রয়েছে। বাকী ১১ জন আসামী ভারত, বেলজিয়াম, ফ্রান্স, ইতালি,কানাডা, দুবাইসহ বিভিন্ন দেশে পলাতক রয়েছে।
হাইকোর্টে বিচারক শাহেদ নুরুদ্দিনের আদালতে এই হত্যা মামলা টি বর্তমানে বিচারাধীন আছে। ট্রাইব্যুনাল মামলা নম্বর (৩১) ৫। টঙ্গী থানার দ্রুত বিচার আইনে মামলা নম্বর ৭ (৫) ২০০৪। শহীদ আহসানউল্লাহ মাষ্টারের ছোট ভাই বর্তমানে গাজীপুর জেলা স্বেচছা সেবকলীগের আহবায়ক মতিউর রহমান মতি এই হত্যা মামলার বাদী।
শহীদ আহসানউল্লাহ মাষ্টারের বড় ছেলে জাহিদ আহসান রাসেল এমপি তার পিতার ১০ম শাহাদ বার্ষিকীর কর্মসূচীতে গ্রামের বাড়ি হায়দরাবাদসহ টঙ্গী ও গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় আওয়ামী লীগ, শ্রমিকলীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ নেতাকর্মীসহ সকল স্তরের মানুষকে অংশগ্রহণ করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। অপরদিকে ভাওয়াল আইডিয়াল একাডেমী ও ভাওয়াল শিশু কিশোর ফোরামসহ বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান আহসানউল্লা মাষ্টারের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ