• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৫:০২ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :
পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট খোলা বায়েজিদ আটক নীলফামারী জেলা শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলামের শ্বশুড়ের ইন্তেকাল সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের গ্রন্থাগারের মূল্যবান বইপত্র গোপনে বিক্রি ফেনসিডিলসহ সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা গ্রেপ্তার এ সেতু আমাদের অহংকার, আমাদের গর্ব: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারতে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে ৮ দিন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন বাংলাদেশের জন্য এক গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক দিন: প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যেতে মানতে হবে যেসব নির্দেশনা সৈয়দপুরে বিস্কুট দেয়ার প্রলোভনে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ গণমানুষের সমর্থনেই পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে ব্যায়াম

dayabetisঢাকা : ডায়াবেটিস রোগ নিয়ে ভুগছে না এমন পরিবারের সংখ্যা দিনে দিনে কমে আসছে। আপনি যদি এমন পরিবারের সদস্য না হয়ে থাকেন তবে আপনি ভাগ্যবানদের একজন বলা যায়, কেননা এই ডায়াবেটিস ধীরে ধীরে শরীরের প্রধান প্রধান অঙ্গকে আক্রমণ করে।

আমাদের টার্গেট হবে যদি ডায়াবেটিস হয়েও যায়, তবুও রক্তে গ্লুকোজ-এর লেভেল মেইন্টেইন করে একে স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করা। কেননা রক্তে গ্লুকোজ স্বাভাবিক থাকলেই আমরা ডায়াবেটিস দমিয়ে রাখতে পারবো।

শারীরিক ব্যায়াম এই ব্যাপারে খুব ভালো ভূমিকা পালন করে। যদি রেগুলার ব্যায়াম করা যায় তবে ডায়াবেটিসকে বেশ ভালোভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে কিভাবে ব্যায়াম করা যেতে পারে, আর এটা কিভাবেই বা কাজ করে!

কিভাবে করা যেতে পারে:

প্রতিদিন সকাল বা বিকালে ৪৫ থেকে ৬০ মিনিট করে হাঁটা বা দৌড়ানো যেতে পারে। এই সহজ ব্যায়ামই সকল ডায়াবেটিক কপ্লিকেশনকে থামিয়ে রাখতে প্রধান ভূমিকা পালন করে।

কিভাবে কাজ করে:

ইনসুলিনের অভাবে রক্তের গ্লুকোজ কোষের ভিতরে ঢুকতে পারে না। তাই রক্তে গ্লুকোজ-এর পরিমাণ বেড়ে যায়। রক্তের গ্লুকোজ কোষের ভিতরে যেতে গ্লুট (GLUT) নামের সারফেস প্রোর্টিন কাজ করে, যার অনেকগুলো টাইপ রয়েছে এবং এর সবগুলো টাইপ কাজ করতে সরাসরি ইনসুলিনের এর উপর নির্ভরশীল। শুধু মাত্র গ্লুট ৪ (GLUT ৪) কাজ করে ব্যায়ামের মাধ্যমে। মানুষ যখন শারীরিক শ্রম করে তখন এই গ্লুট ৪ এর মাধ্যমে রক্তের গ্লুকোজ কোষের ভিতরে ঢুকে। এভাবেই ব্যায়ামের মাধ্যমে রক্তে গ্লুকোজ এর পরিমাণ কমে গিয়ে ডায়াবেটিস-এর কমপ্লিকেশান হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

কিভাবে করতে হবে:

হাঁটা বা দৌড়ানোর ক্ষেত্রে ৫ মিনিট একটু জোরে যেতে হবে, পরবর্তী ৫ মিনিট একটু ধীরে অনেকটা স্বাভাবিক হাঁটার মতো। আবার পরবর্তী ৫ মিনিট জোরে, এভাবে ৪৫ থেকে ৬০ মিনিট নিয়মিত ব্য‍ায়াম করতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ