• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৪:৫৯ অপরাহ্ন |
শিরোনাম :

নীলফামারীর বড় মাঠ দখলমুক্ত করার দাবিতে মানববন্ধন

Nilphamari Photo-02
নীলফামারী প্রতিনিধি: নীলফামারীর বড় মাঠ দখলমুক্ত করার দাবিতে নীলফামারীতে মানববন্ধন করেছে জেলার সচেতন নাগরিক সমাজ ও খেলোয়াড়রা। রবিবার দুপুর ১২টায় শহরের স্বাধীনতা অম্লাণ স্মৃতি স্তম্ভ চত্বরে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন দলের নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশগ্রহণ করেন। এসময় জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহবায়ক মীর সেলিম ফারুক, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুসফিকুর রহমান রিন্টু, জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক জয়নাল আবেদীন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য সচিব ও জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক আরিফ হোসেন মুন, সাবেক ফুটবলার শওকত আলী টুলটুল, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুজার রহমান, জেলা আইনজীবি সমিতির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট আবু মোহাম্মদ সোয়েম, স্বাধীনতা চিকিৎসা পরিষদ স্বাচিবের সাধারণ সম্পাদক ডা. মজিবুল হাসান চৌধুরী শাহীন, নীলফামারী সনাকের আহবায়ক অধ্যাপক নরেশ চন্দ্র রায় ও সরকারী মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদ রহমান বক্তব্য রাখেন।
বক্তারা বলেন, শত বছর আগে ১৯১৪ সালে মাঠটি তৈরীর পর থেকে নীলফামারীর এটি ছিলো মানুষের বিনোদনের কেন্দ্র বিন্দু। এ মাঠের ভেতর একসময় একসাথে চারটি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হতো। এই মাঠে খেলাধুলা করে অনেক খেলোয়াড় পরবর্তীতে জাতীয় পর্যায়ে ভূমিকা রেখেছেন। অথচ দিন দিন নীলফামারীর অহঙ্কার এই মাঠটি দখল হয়ে যাচ্ছে। এই মাঠের বুকে প্রতিদিনই বসছে বিভিন্ন ধরনের দোকান। সংকোচিত হয়ে আসছে মাঠটি। তাই বড় মাঠ থেকে সমস্ত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে খেলাধুলা ও বিনোদনের পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দাবি জানানো হয়।
মাঠটিতে পৌরসভা ভবন, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস, পানির ট্যাংক, বাগান, পুরাতন কাপরের বাজার প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর এখন ব্যাবসায়ীরা সেখানে অবৈধ ভাবে স্থাপনা নির্মান করে এটিকে সংকোচিত করে ফেলেছে।
মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্তরে সমবেত হয়ে আন্দোলনকারীরা দখল মুক্ত মাঠ চাই, সার্কাস, মেলা, গরুর হাট না বসানোসহ সাত দফা দাবি বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন। জেলা প্রশাসক মোঃ জাকীর হোসেন স্বারকলিপি গ্রহন করে দাবি পুরনের আস্বাস দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ