• বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১১:০৫ অপরাহ্ন |

খানসামায় শিক্ষা অফিসারের দাবীতে শিক্ষকদের লিখিত আবেদন

Dinajpur mapখানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের খানসামায় প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার যোগাদান করে অনুপস্থিত থাকায় অফিসারহীন অফিসে  সহকারি শিক্ষা অফিসারের সীমাহীন দূর্নীতি ঠেকাতে স্থায়ী শিক্ষা অফিসার চেয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে লিখিত আবেদন করেছেন উপজেলার শিক্ষকগণ।
সূত্রমতে, গত ২৫ মার্চ খানসামার প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নুরুল আমিন বদলী হয়ে রংপুর জেলার বদরগঞ্জ উপজেলায় যোগদান করেন এবং পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিসার মনছুর আলী বদলী হয়ে ২রা এপ্রিল খানসামায় যোগদান করেন। কিন্তু যোগদানের পরদিন বদলীর স্থগিতাদেশ প্রাপ্ত হয়ে কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলায় যোগদান করেন। পরে বদরগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিসার জিয়াসমিন আক্তার বদলী হয়ে ২০ এপ্রিল খানসামা শিক্ষা অফিসে যোগদানের আদেশ প্রাপ্ত হলে তিনি ওই তারিখে দিনাজপুর জেলা শিক্ষা অফিসে হাজিরা দিয়ে পারিবারিক সমস্যা দেখিয়ে ৩০ তারিখ পর্যন্ত ছুটি নেন এবং ছুটির শেষ দিন শুধুমাত্র নিয়মিত বেতন বিলে স্বাক্ষর করে আবারও ২০ মে পর্যন্ত আবারও মেডিকেল ছুটির আবেদন করে কর্মস্থলে অনুপস্থিত রয়েছেন।
এদিকে শিক্ষক কর্মচারীদের বিল-বেতন, বদলী, শান্তি বিনোদন, জিপিএফ লোন, টিএ বিল, কন্টিজেন্সি বিল, এলপিআর সহ বিভিন্ন কাগজপত্র নিয়ে সমস্যার সৃষ্টি হলে সহকারি শিক্ষা অফিসার আজমল হোসেন কোন প্রকার দায়িত্ব প্রাপ্ত’র বিষয় উল্লেখ না করেই উপজেলা শিক্ষা অফিসারের পদবী, ঠিকানা, ইমেইল ও ফোন নম্বর ব্যবহার করে সরাসরি শিক্ষা অফিসার সেজে শিক্ষক বদলীতে রমরমা ব্যবসাসহ নানা বিষয় ফায়দা লুটাচ্ছেন। এসব ঘটনায় উপজেলার শিক্ষকগণ খানসামায় একজন স্থায়ী শিক্ষা অফিসার (আয়ন-ব্যয়ন কর্মকর্তা) চেয়ে জেলা শিক্ষা অফিস বরাবরে একটি লিখিত আবেদন করেন।
সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আজমল হোসেন ডলারের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি শিক্ষা অফিসার অনুপস্থিত বিষয় অবগত নন এবং অর্থ নিয়ে বদলীর বিষয়টি অস্বীকার করেন।
পরে শিক্ষা অফিসার জিয়াসমিন আক্তারের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তবে জিয়াসমিন আক্তারের স্বামী পার্শ্ববর্তী চিরিরবন্দর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ইফতেখার ফিরোজের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনিও তাঁর স্ত্রীর ছুটির বিষয় অবগত নন বলে জানান।
এ ব্যাপারে দিনাজপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আনোয়ার হোসেনের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি শিক্ষকদের লিখিত আবেদনটি পেয়েছেন বলে জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ