• বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০৪:১৪ পূর্বাহ্ন |

বদলগাছীতে অলৌকিক অগ্নিকান্ড

11আশরাফুল ইসলাম, নওগাঁ: নওগাঁ বদলগাছীতে চাকরাইল গ্রামে অলৌকিক অগ্নিকান্ডের ঘটনায় কয়েকটি পরিবার নিঃস্ব হয়ে গেছে। এখন পরিবারের সদস্যদের চখে শুধুই কান্না আর কান্না। কোন কিছুতেই বন্ধ হচ্ছে না আগুন। সবাই যেন নির্বাক। কিভাবে হচ্ছে কে করছে এ যেন ধরা ছোয়ার বাহিরে। বৃহষ্পতিবার দুপুরে সরেজমিনে তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে ল্য করা যায়, ভূক্তভূগী পরিবারের নারী, পুরুষ, পুত্র, কন্যা সবাই যেন বাড়িঘর পাহারা দিয়ে রয়েছে। কখন কোথায় যেন আগুন জ্বলে উঠে তা নিভাতে সকলকে সতর্ক অবস্থায় থাকতে হচ্ছে। কয়েকটি পরিবারের বাড়ি ঘরে আর কোন কাপড়-চোপর নেই বললেই চলে। বেড, বিছানা, সোফাসেটসহ সমস্ত কাপড়ের আংশিক, অর্ধেক পুড়ে গেছে। সেই কাপড়গুলি বাহিরে আঙ্গিনায় ফেলে রাখতে দেখা গেছে। যে কাপড়টুকু ভাল রয়েছে তা পুড়ে যাওয়ার ভয়ে পানিতে ডুবিয়ে রাখা হয়েছে। মহাদেবপুরের কালনা গ্রাম থেকে জামাই আইয়ুব হোসেন অগ্নিকান্ড দেখার উদ্দেশ্যে শশুর বাড়িতে এসে শার্ট খুলে ঘরে রেখে বাহিরে আসার সংগে সংগে শার্টে আগুন জ্বলে পুড়ে যায়। জামাই এখন খালি গায়ে শশুর বাড়িতে রয়েছে। পরিবারের সদস্যরা জানায়, বৃহষ্পতিবার কমপে ৩০ বার বিভিন্নস্থানে আগুন জ্বলে উঠে। এ প্রতিবেদক উপস্থিত থাকতেই মুকুলের ঘরে আলনায় রাখা শিশু সন্তানের কাঁথায় আগুন জ্বলে উঠে। সংগে সংগে জ্বলে উঠা আগুন ক্যামেরায় ধারন করা হয়। অলৌকিক অগ্নিকান্ডে যে কয়েকটি পরিবার নিঃস্ব হয়ে গেছেন তারা হলেন মোঃ সহরাব হোসেন, মোঃ শাহানাজ, মোঃ মকুল হোসেন, সিদ্দিকুর রহমান এবং উপজেলা প্রকৌশলী অধিদপ্তরের এসও রুকুনুজ্জামান। তারা সবাই জানায়, মাস তিনেক পূর্বে থেকে এ সমস্যা দেখা দেয়। গত কয়েকদিন থেকে এ সমস্যা জটিলতর হয়ে দেখা দিয়েছে। ইতি পূর্বে ছুড়ে মারা ভাঙ্গা মূর্তির গায়ে যে লেখা ছিল ভয়, হাসি ও কান্না। সে আলোকে অদৃশ্য শক্তি কখনও কাঁদে, কখনও খিটখিট করে হাসে আবার কখনও কারো মুখের সামনে হাউ করে উঠে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে, কিন্তু কাউকে দেখা যায় না। বিষয়টি নিয়ে গ্রামবাসীসহ সবাই আতংকিত। ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যদের পড়নের কোন কাপড় চোপড় নেই।  তারা জানায় যে সকল ইট পাটকেল ছুড়ে মারা হয়। তার গায়ে যে লেখা থাকে তা কাচা হাতে লেখা সাদা কাগজে হুমকি, ধামকী, ভয়ভীতির কথা লিখে ইটের গায়ে লাগানো থাকে। যে কথাগুলো লিখা থাকে তা দেখে ধারনা করা হয় এটা পারিবারিক দ্বন্দের জের। কেউ হয়তোবা কুফরী করে এসব চালনা করছে। বিষয়টি জানার পর গতকাল বিকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সোবহান ও থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আজিজুল হক ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গেলে তাদের সামনেও আগুন জ্বলে উঠে। ভূক্তভোগী পরিবারগুলো নওগাঁ জেলা প্রশাসকের সার্বিক সহযোগীতা কামনা করেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ