• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৬:০৭ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :
পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট খোলা বায়েজিদ আটক নীলফামারী জেলা শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলামের শ্বশুড়ের ইন্তেকাল সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের গ্রন্থাগারের মূল্যবান বইপত্র গোপনে বিক্রি ফেনসিডিলসহ সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা গ্রেপ্তার এ সেতু আমাদের অহংকার, আমাদের গর্ব: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারতে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে ৮ দিন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন বাংলাদেশের জন্য এক গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক দিন: প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যেতে মানতে হবে যেসব নির্দেশনা সৈয়দপুরে বিস্কুট দেয়ার প্রলোভনে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ গণমানুষের সমর্থনেই পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

সম্পর্ক মানুষের বৈশিষ্ট্যগত মিলের কারণে: স্পিকার

11ঢাকা: ভারত-বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক অটুট থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমীন চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ ভারতের সম্পর্ক কেবল স্বার্থের উপর ভিত্তি করে নয়, এ সম্পর্ক দুই অঞ্চলের মানুষের বৈশিষ্ট্যগত মিলের কারণেই গড়ে উঠেছে। আগামী দিনে দেশের উন্নয়নের স্বার্থে এ সম্পর্ক আরো জোরদার করতে হবে।’ শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট ভবনে বাংলাদেশ ভারত ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটির উদ্যোগে আয়োজিত এক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ক শুধু সার্বভৌম দুটি দেশের মধ্যকার সম্পর্ক নয়, এটি ভৌগোলিক সীমানা পেরিয়ে মানুষের সঙ্গে মানুষের যে মেলবন্ধন তা তৈরি করেছে। অতীতে যেমন ভারত-বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক দুই দেশকে সাহায্য সহযোগিতার মাধ্যমে এগিয়ে নিয়ে গেছে, বর্তমানেও তা অটুট থাকবে।’

স্পিকার বলেন, ‘দুই দেশের কূটনৈতিক ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বাংলাদেশের নির্বাচিত সংসদ সদস্যরা ভারতে গিয়ে তাদের সংসদে বাংলাদেশ নিয়ে আলোচনা করতে পারবেন ও ভারতের সংসদ সদস্যরা আমাদের দেশের জাতীয় সংসদে এসে আলোচনা করতে পারবেন।’

শিরিন শারমীন বলেন, ‘দুই দেশের সম্পর্ক গণতন্ত্রকে সুসংহত করা, দারিদ্র্য বিমোচন, নারীর ক্ষমতায়ন, আর্থসামাজিক ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে যৌথ ওয়ার্কিং কমিটি ভূমিকা রাখবে। ভারত বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কারণে দুই দেশের আমদানি-রফতানি ও সীমানা চুক্তির ক্ষেত্রে সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে ভারতের সহযোগিতা বাঙালি চিরকাল কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করবে। আমরা যখন এখানে সম্মেলন করছি তখন ভারতে একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।’

তিনি ভারতের নির্বাচনে নির্বাচিত সরকারকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, ‘ভারতে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার গঠন গণতন্ত্রের প্রকৃষ্ট উদাহরণ।’

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান এ কে আজাদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার পঙ্কজ শরণ, বিশেষ অতিথি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সমিতির সদস্য সচিব সুবীর কুশারী।

অতীতের মত বর্তমানে দুই দেশের সম্পর্ক বজায় থাকবে বলে আশা প্রকাশ করে পঙ্কজ শরণ বলেন, ‘অতীতের মত বর্তমানেও বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ থাকবে। বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ সহযোগিতার মাধ্যমে দুই দেশই সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।’

এ সময় সম্মেলন থেকে ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সমিতির ৩৩ সদস্যবিশিষ্ট নতুন কার্যকরী কমিটি ঘোষণা করা হয়। নতুন এই কমিটির সভাপতি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান এ কে আজাদ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সুবীর কুশারীকে নির্বাচিত করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ