• শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০১:১৯ পূর্বাহ্ন |

৮৬ হাজার কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন

Gov. Logoসিসি নিউজ: জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) বৈঠকে আগামী ২০১৪-১৫ অর্থবছরের জন্য ৮৬হাজার কোটি টাকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে মূল এডিপি ৭৯ হাজার ৩১ কোটি, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্টানের ৫ হাজার ৬৮৫ কোটি ৪৮ লাখ টাকা এবং থোক হিসাবে ১ হাজার ২৮৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকা।

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে মঙ্গলবার সকালে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হেয়। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও এনইসি চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা।

মূল এডিপির মধ্যে সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ৫১ হাজার ৩৩১ কোটি এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে ২৭ হাজার ৭০০ কোটি টাকা ব্যয় করার লক্ষ্য ধরা হয়েছে।

নতুন এডিপিতে পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পে বড় অঙ্কের অর্থ দেওয়ায় সর্বোচ্চ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে পরিবহন খাতে।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা সচিব ভুঁইয়া সফিকুল ইসলাম।

পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে সম্পদের সদ্বব্যবহার করা। আজ ৮৬ হাজার কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন দেওয়া হলেও চাহিদা এখনও প্রায় ১ লাখ হাজার কোটি টাকা। থোক বরাদ্দের টাকাটা পরবর্তীতে মন্ত্রনালয়ের চাহিদা অনুযায়ী বরাদ্দ করা হবে।

এর আগে নতুন অর্থবছরে বাজেট মনিটরিং ও সম্পদ কমিটি এডিপির আকার নির্ধারণ করেছে ৭৯ হাজার ৩১ কোটি টাকা। এরমধ্যে সর্বোচ্চ ১৮ হাজার ৯৮ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে পরিবহন খাতে। যা মোট এডিপির ২২ দশমিক ৯০ শতাংশ। এ খাতের আওতায় পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পে ৮ হাজার ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ও পদ্মা সেতুর গুরুত্ব বিবেচনায় সর্বোচ্চ বরাদ্দ প্রস্তাব করা হয়েছে। একই সঙ্গে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতও পদ্মা সেতু ও ঢাকা-চট্টগ্রাম চারলেন প্রকল্পে বাজেটে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলেছেন। সে অনুযায়ী বড় অঙ্কের বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে পরিবহন খাতে।

শিক্ষার প্রসার ও গুণগত মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে শিক্ষা ও ধর্ম খাতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মোট ৯ হাজার ৪০৩ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যা মোট এডিপির ১১ দশমিক ৯০ শতাংশ। তৃতীয় গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে বিদ্যুৎ খাতে। এ খাতে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ৯ হাজার ২৭৭ কোটি টাকা।

এছাড়া ভৌত পরিকল্পনা, পানি সরবরাহ ও গৃহায়ণ খাতে ৭ হাজার ৮৭৬ কোটি ৭৯ লাখ টাকা দেওয়া হয়েছে। যা মোট এডিপির ৯ দশমিক ৯৭ শতাংশ। গ্রামীণ অর্থনীতিতে গতিশীলতা আনয়নে ও অধিক কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য পল্লী উন্নয়ন ও পল্লী প্রতিষ্ঠান খাতে ৬ হাজার ৮৭১ কোটি ১০ লাখ টাকা, যা মোট বরাদ্দের ৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ।

কৃষি খাতে ৫ হাজার ৫৭৫ কোটি ৩৭ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে পরিকল্পনা কমিশন। যা মোট বরাদ্দের ৭ দশমিক শূণ্য ৫ শতাংশ এবং এছাড়া স্বাস্থ্য, পুষ্টি, জনসংখ্যা ও পরিবার কল্যাণ খাতে ৪ হাজার ৯৪৩ কোটি ১ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যা মোট এডিপির ৬ দশমিক ২৫ শতাংশ।

পদ্মা সেতুর কাজ শুরু করতে আগামী অর্থবছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে প্রায় ৮ হাজার ১০০ কোটি টাকা। আগামী জুন মাসে যেহেতু দেশের বৃহত্তর এ সেতুর কার্যাদেশ প্রদান করা হবে, সেক্ষেত্রে যাতে কোনো আর্থিক সঙ্কট না হয় তাই এতো বেশি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

আগামী ২০১৪-১৫ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) বরাদ্দসহ মোট ১ হাজার ১৮৭টির প্রকল্প অন্তভুক্ত করা হয়েছে। এরমধ্যে বিনিয়োগ প্রকল্প ৮৭৯টি, কারিগরি সহায়তা প্রকল্প ১৩৪টি, জাপানি ঋণ মওকুফ সহায়তা তহবিলের (জেডিসিএফ) ২১টি এবং সংস্থা বা কর্পোরেশনের নিজস্ব অর্থায়নের ১৫৩টি প্রকল্প রয়েছে।

সংস্থার নিজস্ব অর্থায়নের বাইরে আগামী অর্থবছরের এডিপিতে একেবারেই নতুন প্রকল্প যুক্ত হয়েছে ২৯টি। এর মধ্যে বিনিয়োগ প্রকল্প ২৪টি এবং কারিগরি সহায়তা প্রকল্প পাঁচটি। এছাড়া বরাদ্দহীনভাবে সংযুক্ত অননুমোদিত সবুজ পাতায় প্রকল্পের সংখ্যা হয়েছে ৬৮১টি। বৈদেশিক সহায়তা প্রাপ্তির সুবিধার্তে অনুমোদনহীন প্রকল্প থাকছে ২৭৬টি।

চলতি অর্থবছরের (২০১৩-১৪) এডিপিতে মোট প্রকল্প ছিল ১ হাজার ১৭৬টি। এর মধ্যে বরাদ্দসহ অর্ন্তভুক্ত প্রকল্প ১ হাজার ৪৬টি। এর মধ্যে বিনিয়োগ প্রকল্প ৮৮৭টি, কারিগরি সহায়তা প্রকল্প ১২৯টি, জেডিসিএফ প্রকল্প ৩০টি এবং স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব অর্থায়নের ১৩০টি প্রকল্প । তবে বরাদ্দসহ প্রকল্পের মধ্যে নতুন অনুমোদিত প্রকল্প ছিল ৫০টি। এরমধ্যে বিনিয়োগ প্রকল্প ৩৪টি, কারিগরি সহায়তা প্রকল্প ১৬টি।

আগামী ২০১৪-১৫ অর্থবছরের নতুন এডিপিতে ৩২৪টি প্রকল্প সমাপ্তির লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে বিনিয়োগ প্রকল্প ২৮৫টি, কারিগরি সহায়তা প্রকল্প ৩০টি এবং জেডিসিএফ প্রকল্প হচ্ছে ৯টি।

গত চলতি অর্থবছরের (২০১৩-১৪) এডিপিতে সমাপ্তির জন্য নির্ধারিত ছিল ৩০৫টি প্রকল্প। তাছাড়া পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপের (পিপিপি) প্রকল্প হিসেবে থাকছে ১৭টি প্রকল্প। চলতি অর্থবছরে পিপিপির লিংক প্রকল্প হিসেবে যুক্ত ছিলো ৪৪টি প্রকল্প।

এছাড়া নতুন এডিপিতে যুক্ত হয়েছে ৩০৮ মেয়াদউত্তীর্ন প্রকল্পের বোঝা। আগামী ২০১৪-১৫ অর্থবছরে এসব প্রকল্পের ঘানি টানতে হবে সরকারকে। বলা হয়েছে অনুমোদিত উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) এবং কারিগরি প্রকল্প প্রস্তাব (টিপিপি) অনুযায়ী এসব প্রকল্প ২০১৪ সালের জুনের মধ্যে সমাপ্ত হওয়ার কথা থাকলেও বিভিন্ন কারণে তা হচ্ছে না। ফলে মেয়াদোত্তীর্ন এ প্রকল্পগুলোকে তারকা চিহ্ন দিয়ে নতুন এডিপিতে অর্ন্তভুক্তির প্রস্তাব করেছে পরিকল্পনা কমিশন। এ প্রকল্পগুলোর মেয়াদ বৃদ্ধি ছাড়া অর্থছাড় কিংবা ব্যয় করা যাবে না বলে নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ