• শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১:৩০ পূর্বাহ্ন |

চিনা এয়ার ফোর্সে বাঁদর সেনা

Monসিসিনিউজ : সমস্যা সমাধানে যদি এগিয়ে আসে বাঁদর! আর্শ্চয হবার কিছুই নেই। এবার চিনা বায়ুসেনার সমস্যার সমাধানে বাহিনীতে যোগ দিল একদল বাঁদর৷ এখানেই শেষ নয়, তাদের প্রশিক্ষণ দিতে ইতিমধ্যেই প্রশিক্ষকও এসে গিয়েছে৷ জোর কদমে চলছে বাঁদরের ট্রেনিং ৷ কাজ কি কম! প্রশিক্ষকের বাঁশির শব্দ শুনলেই ছুটে যেতে হবে৷ ভয় দেখিয়ে তাড়াতে হবে নানা প্রজাতির পাখিদের৷ তারপর ভাঙ্গতে হবে তাদের বাসা৷ চিন দেশের বায়ু সেনাদের দীর্ঘদিন ধরে মাথাব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ছোট্ট ছোট্ট কিছু পাখি । নিরীহ এই পাখিরাই যুদ্ধ বিমান নিয়ে ওড়ার অথবা জরুরি অবতরণের সময় নানা সমস্যা সৃষ্টি করে। গাছগাছালিতে ভরা জায়গাতে পাখির উৎপাতে অতিষ্ঠ সেনারা৷ আতসবাজি ফাটিয়ে ও আরও বেশ কিছু উপায় অবলম্বন করেও পাখি তাড়ানোতে তারা সাফল্য পাননি৷ তাই অবশেষে ডাক পড়েছে এক বিশেষ প্রজাতির বুনো বাঁদরের৷
চিনা এয়ার ফোর্সের ওয়বসাইট থেকে জানা গিয়েছে, এই বিশেষ ধরনের বাঁদরেরা অত্যন্ত বাধ্য ও ভীষণ চটপটে৷ প্রশিক্ষকের বাঁশির শব্দ শুনলেই এক নিমেষে তারা বিমানঘাঁটির আশপাশের গাছপালায় উঠে পাখিদের বাসা ভেঙ্গে দেয় ৷ নিমেষেই এক একটি বাঁদর ছটি করে পাখীর বাসা ভাঙ্গতে পারে৷
প্রতিরক্ষা বাহিনীতে বন্যপ্রাণীর ব্যবহার নুতন কিছু নয়। এর আগেও আমেরিকার সেনাবাহিনী মাইন খুঁজতে একদল ডলফিন পুষেছিল৷ তাদের প্রশিক্ষণ দিয়ে ভালো কাজও হত৷ আর কুকুরের ব্যবহার তো সর্বজনবিদিত৷ তবে বাঁদর কোনও সেনা বাহিনীতে এই প্রথম।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ