• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৮:৩০ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :
পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট খোলা বায়েজিদ আটক নীলফামারী জেলা শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলামের শ্বশুড়ের ইন্তেকাল সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের গ্রন্থাগারের মূল্যবান বইপত্র গোপনে বিক্রি ফেনসিডিলসহ সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা গ্রেপ্তার এ সেতু আমাদের অহংকার, আমাদের গর্ব: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারতে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে ৮ দিন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন বাংলাদেশের জন্য এক গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক দিন: প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যেতে মানতে হবে যেসব নির্দেশনা সৈয়দপুরে বিস্কুট দেয়ার প্রলোভনে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ গণমানুষের সমর্থনেই পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

‘আপুটাকে লাইক করি’ অতঃপর গণধোলাই

gonodoliসিসিনিউজ: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য করায় এক ইভটিজারকে গণধোলাই দিয়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। পরে তাকে প্রক্টরিয়াল টিমের সহায়তায় শাহবাগ থানায় সোপর্দ করে শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির সামনে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ওই ইভটিজারের নাম আরাফাত আলী সিকদার। তিনি বহিরাগত ও পুরান ঢাকার বংশালে আল রাজ্জাক হোটেলের পেছনে একটি বাড়িতে থাকেন। তার বাবার নাম আজম আলী সিকদার। তিনি ব্যবসা করেন বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, টিএসসিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন ছাত্রী আড্ডা দিচ্ছিলেন। একই জায়গায় আরাফাতসহ তার বন্ধুরাও আড্ডা দিচ্ছিলেন। এ সময় আরাফাত ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে অশালীন মন্তব্য করতে থাকেন। ছাত্রীরা এর প্রতিবাদ করলেও আরাফাত তা কানে নেননি।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিষয়টি লক্ষ্য করে আরাফাতকে গণধোলাই দিয়ে প্রক্টর অফিসে নিয়ে যায়। পরে তার বাবার সামনেই প্রক্টর তাকে শাহবাগ থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আরাফাত বলেন, আমি কোনো বাজে মন্তব্য করিনি। আমি শুধু বলেছি ‘আপুটাকে লাইক করি’।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. এম আমজাদ আলী  বলেন, ‘একজন ইভটিজারকে সাধারণ শিক্ষার্থীরা গণধোলাই দিয়েছে। পরে তাকে তার বাবার সামনেই পুলিশের কাছে তুলে দেওয়া হয়েছে।’

উৎসঃ   শীর্ষ নিউজ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ