• শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০২:১৫ পূর্বাহ্ন |

পরিবহন ধর্মঘট: সৈয়দপুরের ব্যবসায়ী ও বাগান মালিকদের মাথায় হাত

Lichuশাহজাহান আলী, সিসিনিউজ: পরিবহণ ধর্মঘটের কারণে নীলফামারীর সৈয়দপুরের লিচুর বাজারে ধস নেমেছে। যান চলাচল বন্ধ থাকায় সৈয়দপুরের বাইরে লিচু যাচ্ছেনা। এতে দাম যেমন কম অন্যদিকে বাইরের কোন ব্যবসায়ীদের ভীড় ল্য করা যায়নি। এর ফলে বাগান মালিকসহ ব্যবসায়ীদের গুনতে হচ্ছে লাখ লাখ টাকা লোকসান।
সৈয়দপুর পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নেসর সভাপতি মোঃ আখতার হোসেন বাদল জানান, গত রবিবার থেকে শুরু হয় অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট। প্রথমদিন থেকেই দূরপাল্লার কোন যানবাহন চলাচল করেনি। এছাড়া গত রবিবার সাপ্তাহিক ছুটি ছিল সৈয়দপুর থেকে ঢাকামুখী নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেন। ওইদিন সৈয়দপুর থেকে বাইরের জেলাগুলোতে বাস বা ট্রাক চলাচল না করায় বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীদের তি হয়েছে লাখ লাখ টাকা। আজ সোমবারও বন্ধ থাকায় তির পরিমাণ দ্বিগুণ হতে পারে বলে জানান তিনি।
সৈয়দপুর বণিক সমিতির সভাপতি ইদ্রিস আলী, বঙ্গবন্ধু কল্যাণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক স.ম. জিয়াউল হক বিপ্লবসহ বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীরা আম ও লিচু ব্যবসায় ধর্মঘটের আওতামুক্ত রাখতে যান মালিক ও শ্রমিক সংগঠনগুলোর প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন। গতকাল সোমবার সকালে ১ নং রেল গুমটি সংলগ্ন লিচুর পাইকারী বাজারে গিয়ে দেখা গেছে রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা ও গ্রাম থেকে পিকআপ, ভ্যান, রিক্সা, নছিমনসহ বিভিন্ন যান বাহনে করে ব্যবসায়ী ও মালিকেরা লিচু নিয়ে আসেন। কিন্তু তারা জানতেন না অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট চলছে। একারণে ক্রেতা নেই বললেই চলে। গত শনিবার যে লিচু তারা বিক্রি করেছেন ৩ শত টাকায় সেই লিচু তাদের বাধ্য হয়ে বিক্রি করতে হয়েছে ১ থেকে দেড় শত টাকায়।
মফিজ নামের এক বাগান মালিক বলেন, ধর্মঘট চলেছে মুই জানোনা। জানিলে কি আর মুই লেচু বেচের আইসো? যতুলা লেচু আনছু এ্যাতে দশ থাকি বারো হাজার টাকা লাভ হবার কথা আছিল। কিন্তুক এ্যালা তাবতই লস হইবে।
আরতদার ফারুক জানান, গত শনিবার মাঝারি ধরণের ১০০ লিচু বিক্রি করেছেন ২শত টাকায়। আর ভাল লিচু বিক্রি হয়েছে ৩ থেকে সাড়ে ৩শত টাকায়। শুধুমাত্র ধর্মঘটের কারণে পানির দামে লিচু বিক্রি করতে হচ্ছে। মজনু নামের অপর এক আড়তদার জানান, প্রতিদিন কমপে ৪ পিকআপ এবং ঢাকাগামী বাসের ছাদে শত শত খাচা ভর্তি লিচু সৈয়দপুর থেকে পাঠানো হতো ঢাকাসহ দেশের অন্যান্য জেলাগুলোতে। কিন্তু হঠাৎ পরিবহণ ধর্মঘটের কারণে বাগান মালিকসহ ব্যবসায়ীদের নিয়ে আসা লিচু বাইরে পাঠাতে না পারায় লসের ধাক্কায় কোমর বাকা হওয়ার সামিল হয়েছে। তারা বলছেন, পরিবহণ ধর্মঘট যদি অনির্দিষ্টকালের জন্য হয়ে থাকে তাহলে সৈয়দপুর, বদরগঞ্জ, খাগরাবন্ধ ও দিনাজপুরের লিচু ব্যবসায়ী ও বাগান মালিক যেমন লোকসান গুনবেন তেমনি রাজধানী ঢাকাসহ দেশের অন্যান্য জেলার মানুষের ভাল লিচু খাওয়ার শখ, শখই থেকে যাবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ