• মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০৩:১৪ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :

বুড়িগঙ্গা তীরে হচ্ছে না র‌্যাব কার্যালয়

Gov. Logoঢাকা : রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীর আদি চ্যানেলে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব-১০) কার্যালয় নির্মিত হচ্ছে না। এজন্য বরাদ্দ বাতিল করে র‌্যাবকে অন্যত্র জমি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সোমবার সচিবালয়ে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে নদী উদ্ধার নিয়ে অনুষ্ঠিত এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী মোশাররফ হোসেন সভায় সভাপতিত্ব করেন।

বৈঠক শেষে নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেন, সভায় র‌্যাব-১০-কে তাদের স্থায়ী অফিস করার জন্য কামরাঙ্গীরচর বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেলে যে জমি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল তা বাতিল করা হয়েছে।

তিনি বলেন, নদী বাঁচানোর স্বার্থে এ জমি র‌্যাব-১০-কে দেওয়া হচ্ছে না। তবে তাদের অন্য কোথাও উঁচু জমিতে স্থায়ী অফিস করার জন্য জমি বরাদ্দের সুপারিশ করা হয়েছে। শাজাহান খান সাংবাদিকদের বলেন, গত রোববার পাঁচজন মন্ত্রী ওই এলাকা সরেজমিনে দেখেছেন। এরপর পর্যালোচনা করে মনে হয়েছে, এ জায়গাটি বরাদ্দ দেওয়া হলে বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল উদ্ধারকাজ বাধাগ্রস্ত হবে। এজন্য এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রী আরো বলেন, যে সমস্ত অবৈধ স্থাপনা নদী দখল করেছে সেগুলো অ্যাকশন কমিটি দ্রুত উচ্ছেদ করবে। যদি কোনো সরকারি দলের সদস্য ও নেতা-কর্মী এ অবৈধ দখলে জড়িত থাকে তাদেরকেও ছাড় দেওয়া হবে না।

মন্ত্রী জানান, এছাড়া যেসব জায়গা দখল করা হয়েছে, আদি চ্যানেল উদ্ধারের লক্ষ্যে সেগুলো উচ্ছেদে আজকের সভায় একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান শামছুদ্দোহা খন্দকারের নেতৃত্বে ১৩ সদস্যের একটি অ্যাকশন কমিটি গঠন করে দেওয়া হয়েছে। এ কমিটি বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল নির্ধারণ করে সেখান থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করবে। নদীর গতি অব্যাহত রাখতে খনন করবে। নদীর অবৈধ দখল উচ্ছেদের আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই অ্যাকশন শুরু হবে ও জুন মাসের মধ্যে নদী উদ্ধার কার্যক্রম দৃশ্যমান হবে বলেও দাবি করেন শাজাহান খান। কমিটি আগামী ৩০ জুনের মধ্যে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কাজ সম্পন্ন করবে।

পানিসম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, পরিবেশ ও নদী দূষণ রোধে নতুন আইন করা হচ্ছে। বর্তমান আইনে পরিবেশ ও নদী দূষণ রোধের বিষয়ে যে ধারা রয়েছে তা যথেষ্ট নয়। চিন্তা করা হচ্ছে নতুন আইনে কাঠোর শান্তির বিধান রাখা হবে।

বৈঠকে পানিসম্পাদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, ভুমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরিফ, নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, স্থানীয় সাংসদ হাজী সেলিমসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে রোববার এই পাঁচ মন্ত্রী রাজধানীর বুড়িগঙ্গার অবৈধ দখল ও দূষণ এবং  র‌্যাব ১০-এর স্থান সরেজমিনে পরিদর্শন করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ