• বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ১০:১৭ অপরাহ্ন |

বদরগঞ্জে ট্রাক্টরে পিষ্ট করে কৃষককে হত্যা

Mader-Logoবদরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি: রংপুরের বদরগঞ্জে বন্ধকি জমির ধান কাটা নিয়ে বিরোধের জের ধরে ভগ্নিপতির হাতে প্রাণ গেল নুর আলম(৩৫) নামে এক কৃষকের। পাষন্ড ভগ্নিপতি ইসলাম উদ্দিন ও তার লোকজন হাত পা বেঁধে চলন্ত ট্রাক্টরের নিচে ফেলে দিয়ে তাকে হত্যা করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটে বুধবার সকাল এগারোটায় বদরগঞ্জ-পার্বতীপুর সড়কের রামনাথপুর ইউনিয়নের ফাটকেরডাঙ্গা নামক স্থানে। ময়না তদন্তের জন্য ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ নুর আলমের লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। নুর আলম একই উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের চৌধুরীপাড়ার কফিল মুন্সির ছেলে। সে দীর্ঘদিন ধরে রামনাথপুর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর চকমোনাই গ্রামে ঘরজামাই হিসেবে বসবাস করছিলেন।
এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, নুর আলম তার বড় বোন জামাই ইসলাম উদ্দিনের কাছ থেকে ৫ বছর আগে ৬০ শতক জমি বন্ধক নিয়ে চাষাবাদ করে আসছিলেন। এবারে ওই বন্ধকী জমিতে তিনি বোরো ধান আবাদ করেন। এর আগে ইসলাম উদ্দিন জোর করে কয়েক দফায় ওই জমি তার দখলে নেওয়ার জন্য চেষ্টা চালায়। ঘটনার দিন গতকাল বুধবার ইসলাম উদ্দিন লোকজন নিয়ে জোর করে ওই জমির ধান কেটে ট্র্াক্টরে করে নিয়ে যাচ্ছিল। এসময় খবর পেয়ে নুর আলম বাধা দিতে গেলে ইসলাম উদ্দিনের নির্দেশে সাহেব আলী, মোতালেব হোসেন ও আব্দুল আলিমসহ কযেকজন নুর আলমের হাত পা বেঁধে ধান বোঝাই ওই চলন্ত ট্রাক্টরের নিচে ফেলে দেয়। এতে নুর আলম চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান। ঘটনার পর পরই পাষন্ডরা বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় বদরগঞ্জ থানায় হত্যা মামলার প্রক্রিয়া চলছে।
নুর আলমের বড় বোন নিলুফা বেগম(৩৮) স্বামী ইসলাম উদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, তার ইন্ধনে আমার ভাইকে হত্যা করা হয়েছে। আমি তাদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি চাই।
বদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) জাহিদুর রহমান চৌধুরী বলেন, ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ