• শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১২:৫৯ পূর্বাহ্ন |

নীলফামারীতে সাব-রেজিস্টারের বিরুদ্ধে দলিল লেখকদের বিক্ষোভ

Bikkopনীলফামারী প্রতিনিধি: নীলফামারীতে সদর উপজেলার সাব-রেজিস্টারের বিরুদ্ধে ঘুষ চাওয়ার অভিযোগ এনে  সোমবার  থেকে  দলিল লেখা বন্ধ করে ওই সাব-রেজিষ্ট্রারের বিচার ও তাঁকে প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে দলিল লেখকরা। এদিকে নিজরে বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সাব-রেজিস্টার আনন্দ বম্মর্ণ।
নীলফামারীর সদর উপজেলা সাব-রেজিট্রার অফিসের দলিল লেখক আলমগীর হোসের অভিযোগ করে বলেন, ‘চিকিৎসার টাকার প্রয়োজনে আমার অসুস্থ্য বাবা স্কুল শিক্ষক মেসের আলী ১০ শতক জমি বিক্রী অন্যের কাছে  মৌখীক বায়নামায় বিক্রী করেন। গত রবিবার ওই জমি বিক্রেতাকে রেজিষ্ট্রি  দেয়ার জন্য সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে আসেন। আমার বাবা অসুস্থ্য ও পঙ্গু হওয়ায় তাঁকে অফিসের ভেতরে নেয়ার অসুবিধার কথা চিন্তা করে জমির দলিল রেজিস্ট্রির জন্য সার-রেজিস্টার আনন্দ বম্মর্ণকে অফিসের সামনে এসে সম্মতি নেয়ার (আমার বাবার) অনুরোধ জানাই। কিন্তু তাতে তিনি পাঁচ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন আমার কাছে।’
নীলফামারী সাব-রেজিষ্ট্রার অফিসের দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ শাহ বলেন,‘বিষয়টি মানবিক হওয়ায় সমিতির সভাপতি তোজ্জাম্মেল হোসেন সরকারসহ আমি নিজে ওই বিষয়ে সাব-রেজিস্টারকে অনুরোধ জানাই। এরপরও টাকা ছাড়া ওই দলির রেজিস্ট্রিতে অসম্মতি জানান তিনি। পরে দলিল লেককদের চাপের মুখে দলিলটি সম্পাদন করে দেন।’ তিনি জানান, সোমবার সকাল থেকে দলিল লেখা বন্ধ করে বিকেল পর্যন্ত দফায় দফায় ওই সাব-রেজিস্টারের বিচার দাবি করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে সকল দলিল লেখক।
এব্যাপারে সাব-রেজিস্টার আনন্দ বম্মর্ণ ঘুষ চাওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,‘জমি দাতার ছেলে আমার সাথে অসদাচরণ করলে প্রথমে আমি দলিল সম্পাদন করতে অস্বীকার করি। পরে মানবিক দিক বিবেচনা করে দলিলটি সম্পাদন করে দেই।’
সার্বিক বিষয়ে জেলা রেজিস্ট্রার খলিলুর রহমানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,‘ঘটনা শুনেছি, আমি নীলফামারীর বাইরে, ঢাকায় জরুরী কাজে অবস্থান করছি। সরেজমিনে গিয়ে বিষয়টি জেনে-শুনে ব্যবস্থা নিব।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ