• সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০৯:৪২ পূর্বাহ্ন |

ছাত্রশিবিরের লক্ষ্যই সোনালী সমাজ প্রতিষ্ঠা

shibir president.06.6.14_26686ঢাকা: বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি আবদুল জব্বার বলেছেন, ‘ক্ষুধা ও দুর্নীতিমুক্ত একটি সোনালী সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যেই ছাত্রশিবিরের প্রতিষ্ঠা। খোলাফায়ে রাশেদার মত সে সোনালী সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে হলে ছাত্রসমাজসহ সাধারণ মানুষের কাছে ইসলামের সুমহান আদর্শ পৌঁছে দিতে হবে।’
শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর এক মিলনায়তনে ছাত্রশিবির ঢাকা অঞ্চল দক্ষিণের সদস্য শিক্ষাশিবিরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।
আবদুল জব্বার বলেন, ‘সর্বস্তরের মানুষকে ইসলামের আলোয় আলোকিত করার মাধ্যমে সমাজকে নিরাপদ, সুখী ও সুন্দর করে গড়ে তুলতে হবে। নিজেরা ইসলামী আন্দোলনের পথে অবিচল থেকে সামগ্রিক জীবন পরিচালিত করতে হবে।’
শিবির সভাপতি বলেন, ‘স্বাধীনতার পক্ষের কথা বলে সরকার দলীয় ছাত্রসংগঠন টেন্ডারবাজি, খুন, সন্ত্রাস, হত্যা, অপহরণে লিপ্ত রয়েছে। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে ছাত্রলীগ আরো বেপরোয়াভাবে সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।’
তিনি বলেন, ‘কিছু দিন আগে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজে মধ্যযুগীয় বর্বর কায়দায় প্রতিপক্ষ ছাত্রসংগঠনের নেতা তাওহীদকে হত্যা করেছে। এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, কৃষি বিদ্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমন নারকীয় বর্বতার পরিচয় দিয়েছে তারা। এরপরও নির্যাতক ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের লাগাম টেনে ধরা হচ্ছে না। বরং নিরাপরাধ মেধাবী ছাত্রদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার ও নির্যাতন করা হচ্ছে।’
শিবির সভাপতি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতাদের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে নারায়ণগঞ্জ ও ফেনীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে একের পর এক নৃশংস হত্যাকাণ্ড ঘটছে। এ কাজে নিজেদের ক্যাডার বাহিনীর সাথে প্রাশাসনিক কর্মকর্তাদেরও জড়িয়ে ফেলা হয়েছে। ফলে আওয়ামী সরকার এখন জনবিচ্ছিন্ন একটি দলে পরিণত হয়েছে।’
তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকারের পক্ষে কোনো জনভিত্তি না থাকলেও গায়ের জোরে তারা টিকে থাকতে চাইছে। নিজেদের অপকর্ম ঢাকতে অন্যের ওপর দোষ চাপাতে তারা ব্যস্ত। কিন্তু শত চেষ্টা করেও জনসমর্থন শূন্য এ সরকার বেশী দিন ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারবে না।’
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ও ঢাকা মহানগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি সেলিম উদ্দীন বলেন, ‘সরকারের জনবিরোধী কাজের ফলে জনমনে যে ক্ষোভ জমেছে, তা দমন-নির্যাতন চালিয়ে বন্ধ করা যাবে না। নির্যাতক শাসকের পরিণাম অতীতে কখনোই ভালো হয়নি, আওয়ামী লীগেরও হবে না। নির্যাতন চালানোর কারণে জনগণ আওয়ামী লীগের দিক থেকে মুখ ফিরায়ে নিয়েছে। আর জামায়াত-শিবির জনগণের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে।’
আরেক সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ও ঢাকা মহানগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ বলেন, ‘সঠিক নেতৃত্বের অভাবে স্বাধীনতার এত বছর পরও বাংলাদেশ একটি সুখী সমৃদ্ধশালী দেশ হিসেবে গড়ে উঠতে পারেনি।’
তিনি বলেন, ‘সারা বিশ্বে আজকে নির্যাতিত মানুষের আর্তচিৎকারে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠছে। অশান্ত দুনিয়াতে এখন প্রয়োজন সৎ, দক্ষ ও খোদাভীরু নেতৃত্ব। এক্ষেত্রে ইসলামী আন্দোলনের জনশক্তিদের সে আলোকে তৈরি হতে হবে।’
ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় ছাত্র আন্দোলন সম্পাদক জাকির হোসেন সেলিমের সঞ্চালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছাত্রশিবিরের সাবেক অফিস সম্পাদক শেখ নিয়ামুল করিম বক্তব্য দেন।
এ সময় নারায়ণগঞ্জ মহানগরী সভাপতি খোরশেদ আল, ঢাকা জেলা দক্ষিণ সভাপতি আব্দুর রহিম মজুমদার ও নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি শফিকুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ