• সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০৯:৩৬ পূর্বাহ্ন |

জাপার প্রতি ক্ষুব্ধ আওয়ামী লীগ

Awamili Flagসিসিনিউজ: নানা নাটকীয়তার পর সরকারে অংশীদার হয় জাতীয় পার্টি। অনেকটা অপ্রত্যাশিতভাবেই প্রধান বিরোধী দলের চেয়ারে বসে দলটি। সাবেক ফার্স্ট লেডি রওশন এরশাদ হন বিরোধী দলের নেতা। প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচনে রাজনৈতিক এ পটপরিবর্তন অনেকের কাছে অস্বাভাবিক ও অপ্রত্যাশিত হলেও আওয়ামী লীগের লক্ষ্য ছিল জাতীয় পার্টি বিরোধী দল হিসেবে ভূমিকা রাখতে পারবে। অন্তত সংসদ এবং রাজপথে তাদের অবস্থান স্পষ্ট হবে। এতে কিছুটা হলেও রাজপথের বিরোধী দল বিএনপি থেকে দৃষ্টি ফিরবে মানুষের। কিন্তু ক্ষমতা গ্রহণের পাঁচ মাস পার হলেও আওয়ামী লীগ সেই কাঙ্ক্ষিত বিরোধী দলকে দেখতে পায়নি। বিরোধী দল হিসেবে জাতীয় পার্টির ভূমিকায় হতাশ, ত্যক্ত-বিরক্ত আওয়ামী লীগের নেতারা। জাতীয় পার্টিকে প্রধান বিরোধী দল করা একই সঙ্গে দলটির নেতাদের মন্ত্রিপরিষদে স্থান দেয়ার পর এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা ছিল সর্বত্র। খোদ দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য জিএম কাদের প্রশ্ন তুলেছেন একই সঙ্গে সরকার ও বিরোধী দলে জাতীয় পার্টির অবস্থান নিয়ে। নাটকীয় পরিবর্তনের পর জাতীয় পার্টিতে যে মেরুকরণ শুরু হয়েছে তাতে দলটির তৃণমূল নেতাকর্মীরাও বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছেন। স্থানীয় পর্যায়ে কর্মী-সমর্থকরা দলটির প্রতি বিমুখ অবস্থানের জানান দিচ্ছেন। এর লক্ষণ দেখা যায় গত উপজেলা নির্বাচনে। দলের শোচনীয় অবস্থানের কারণে ওই নির্বাচনে কোন প্রার্থীকেই সমর্থন দিতে পারেনি জাতীয় পার্টি। যদিও ঘটা করে অনৈতিকভাবে দলীয় মনোনয়ন বিক্রি শুরু করেছিল জাপার চেয়ারপারসনের কার্যালয়। পরে প্রার্থীদের সাড়া না মেলায় তা বন্ধ করে দেয়া হয়। নির্বাচনে চরম ব্যর্থতার চিত্র ফুটে ওঠে দলটির। নির্বাচনের ফলে দলীয় নেতাকর্মীরাও হতাশ হয়ে পড়েন। এদিকে বিরোধী দলে অবস্থান নেয়ার পর বিরোধী দল হিসেবেও নিজেদের অবস্থান জানান দিতে পারেনি জাতীয় পার্টি। বিরোধী দলের নেতা রওশন এরশাদের  দলীয় এবং সরকারি কর্মকাণ্ডে সক্রিয় না হওয়ায় দৃশত কোন কর্মকাণ্ড জনসাধারণের নজরে আসছে না বলে মনে করছে সরকারি দল। সম্প্রতি বিরোধী দলের নেতা হিসেবে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে একটি মতবিনিময় অনুষ্ঠান নিয়েও রয়েছে নানা গুঞ্জন। গত ২১শে মে জাতীয় সংসদের মিডিয়া সেন্টারে ওই মতবিনিময় অনুষ্ঠানে দলের অবস্থান স্পষ্ট করতে পারেননি রওশন। বরং সাংবাদিকদের তির্যক প্রশ্নে অনেকটা অস্বস্তি বোধ করেন তিনি। আলোচনা আছে বিরোধী দল হিসেবে জাপাকে দৃশ্যমান করতে ক্ষমতাসীন দলের পরামর্শে রওশন গণমাধ্যমের সামনে আসেন। কিন্তু তার বক্তব্যে হতাশ হন আওয়ামী লীগ নেতারাই। এদিকে বিরোধী দল হিসেবে বিদেশী দূত ও রাষ্ট্রের কাছেও যথাযথ কদর পাচ্ছে না জাতীয় পার্টি। এ সমস্যা কাটাতে দলটির পক্ষ থেকে কোন তৎপরতাও নেই। উৎস: মানবজমিন
এদিকে সরকারে অংশ নেয়া ও বিরোধী দলে থাকার বিষয়ে শুরু থেকেই মতবিরোধ থাকায় এখন পর্যন্ত দলের নেতারা স্থির অবস্থানে পৌঁছতে পারেননি। রওশন এরশাদ বিরোধী দলের নেতা হওয়ায় এরশাদপন্থি নেতারা অনেকে মনে করছেন সরকারের পরামর্শে এরশাদকে দলে কোণঠাসা করা হচ্ছে। সর্বশেষ দলের মহাসচিব বদলও এ প্রক্রিয়ার অংশ। যদিও মামলার চাপ এবং দলের নাজুক অবস্থার কারণে এরশাদ নিজের অবস্থান নিয়ে স্পষ্ট কিছু বলতে পারছেন না। নতুন দায়িত্ব পাওয়া মহাসচিব জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু জানিয়েছেন, দলের চেয়ারম্যানের সিদ্ধান্তে তাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। দলকে ঐক্যবদ্ধ করতেই তিনি কাজ করবেন।
সম্প্রতি দলের অবস্থান নিয়ে সমালোচনা করায় চেয়ারম্যানের তোপের মুখে পড়েন প্রেসিডিয়াম সদস্য জিএম কাদের। এরশাদ তার ভাই কাদেরকে প্রথমে সতর্কবার্তা ও পরে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন। কাদের একটি পত্রিকায় সাক্ষাৎকার ও একটি পত্রিকায় কলাম লিখে একই সঙ্গে সরকার ও বিরোধী দলের অবস্থানের সমালোচনা করেছিলেন। এ কারণে তার কাছে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠান এরশাদ। দলীয় সূত্র বলছে, জিএম কাদের প্রশ্ন তুলে সরকার ও বিরোধী দলের সমালোচনা বাড়াচ্ছেন এমন অভিযোগ করে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকেই উষ্মা প্রকাশ করা হয়। সরকারের পক্ষ থেকে উষ্মা প্রকাশের কারণেই এরশাদ তার ভাইকে নোটিশ দিতে বাধ্য হন। এদিকে জাপা চেয়ারম্যান এরশাদকে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত করার পরও তাকে বিশেষ কোন দায়িত্ব না দেয়ায় এরশাদ সরকারের ওপর নাখোশ। দলীয় সূত্র জানায়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করেও এরশাদ তার দায়িত্ব ও কাজ সম্পর্কে কোন ধারণা না পাওয়ায় তিনি হতাশ হন। সম্প্রতি তিনি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সরকারের সমালোচনাও করছেন। সাম্প্রতিক গুম-খুন ও হত্যা ঘটনায়ও সরকারের সমালোচনা করছেন এরশাদ। সরকারের দায়িত্বে থেকে সরকারের বিরোধিতা ও সমালোচনা করাকে আওয়ামী লীগ সরকারের সংশ্লিষ্টরা ভাল চোখে দেখছেন না। আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়ামের একজন সদস্য জাপার বিষয়ে বলেন, বিরোধী দল হিসেবে তাদের অনেক দায়িত্ব। কিন্তু দৃশ্যত জাতীয় পার্টির অবস্থান প্রশ্নবিদ্ধ। তিনি বলেন, বিরোধী দল হিসেবে তারা নিজেদের তুলে ধরতে পারছেন না। যদিও এসব অভিযোগের জবাবে বিরোধী দলের নেতা রওশন এরশাদ জানিয়েছেন, বিরোধী দল হিসেবে সরকারের গঠনমূলক সমালোচনা ও পরামর্শ দিয়ে যাবে তার দল। প্রয়োজনে রাজপথেও কর্মসূচি দেয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ