• সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ১০:১১ পূর্বাহ্ন |

জলঢাকায় প্রকল্প কর্মকর্তার অফিসে চলছে দুর্নীতির আখড়া

Oniomজলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি: নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার অফিস এখন দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে। প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ২০১৩ সালে উপজেলাটিতে যোগদান করেন। অভিযোগ উঠেছে তিনি যোগদান করার পর থেকে প্রকল্প অফিসে চলছে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির মহোৎসব। প্রকল্পের টাকা তুলতে হলে আগে টাকা দিতে হবে, এটি এখন প্রকল্প অফিসের মূল শ্লোগান। সূত্রমতে, প্রকল্প অফিসের আওতাধীন ২০১৩-১৪ অর্থবছরের গ্রামীণ অবকাঠামো (কাবিটা) উপজেলা ১ম পর্যায়ে গম বরাদ্দ ১৫৯টন, প্রকল্প ১২টি, এমপির গম বরাদ্দ ২৪০টি, প্রকল্প ২৬টি, মোট ৩৯৯টন গম প্রকল্পের সংখ্যা ৩৮টি। ২য় পর্যায়ে কাবিটা উপজেলা পরিষদের টাকা ৩২ লাখ ১২ হাজার, প্রকল্প ১২টি। আবার উপজেলা পরিষদের ১২ লাখ, প্রকল্প ৫টি, মোট প্রকল্পের সংখ্যা ১৭টি। ২য় পর্যায় কাবিটা এমপির বরাদ্দ ৪০লাখ ১২ হাজার ৫শ টাকা প্রকল্প ২৬টি। আবার ১৩ লাখ৮ হাজার ৭শ, প্রকল্প ৯টি, তাহলে প্রকল্পের সংখ্যা মোট  প্রথম পর্যায়ে ৩৮টি ২য় পর্যায়ে ৫২টি। ১ম ও ২য় পর্যায় মিলে প্রকল্পের সংখ্যা মোট ৯০টি, এর মধ্যে এমপি অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা ৬১টি ও উপজেলা পরিষদের ২৯টি। এমপির বরাদ্দ অর্থ বরাদ্দ প্রতিটি প্রকল্পের জন্য নির্ধারিত ১লাখ ৫০ হাজার টাকা। আর উপজেলার পরিষদের বরাদ্দকৃত অর্থ প্রতিটি ইউনিয়নের জনসংখ্যার উপর ভিত্তি করে নির্ণয় করা হয়ে থাকে। সরকার দলীয় এক প্রকল্প সভাপতি বলেন, তিনি এমপি সাহেবের একটি প্রকল্প পেয়েছেন। যার প্রকল্প বরাদ্দ ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা। তিনি প্রথম কিস্তিতে ৩৭ হাজার ৫শত টাকা উত্তোলন করেছেন। প্রকল্প কর্মকর্তাকে আগে ২০% হিসাবে ৭ হাজার ৫শ টাকা দিতে হয়েছে। শুধু কাবিটাই নয় হতদরিদ্রদের ৪০ দিনের কর্মসূচী (ইজিপিপি) মোট বরাদ্দ ৫ কোটি ৪০ লাখ ২শ টাকা ও প্রকল্প সংখ্যা ৯৯টি। প্রকল্প কর্মকর্তার অধীনে যেসব প্রকল্প রয়েছে তাকে ২০% টাকা দিতে হয়েছে এবং সাব-এ্যাসিসট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার সুপারভাইজার মামুনকে ইজিপিপি প্রকল্পের আওতায় টাকা দিতে হয়েছে ১৫% হারে। তাছাড়াও চাল বিতরণে নানা অনিয়ম, দুর্নীতি করে যাচ্ছে এ দাপুটে প্রকল্প কর্মকর্তা। এসব প্রকল্প উত্তোলনে শতকরা ২০% করে টাকা নিচ্ছেন। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারে জানান, আমি ইতোমধ্যে অনেকের মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। আজ রোববার অফিস করে ৭ দিনের জন্য ট্রেনিং-এ যাবো, ফিরে এসে বিষয়টি খতিয়ে দেখব, এবং সত্যি হলে ব্যবস্থা নেব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ