• শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০২:২০ পূর্বাহ্ন |

নীলফামারীতে ১৮হাজার ৪৪৭ মেট্রিক টন চাল কেনার লক্ষ্যমাত্রা

oms-kanagghatনীলফামারী প্রতিনিধি: চলতি বোরো মৌসুমে নীলফামারী জেলায় ১৮হাজার ৪৪৭মেট্রিক টন চাল ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে খাদ্য বিভাগ এছাড়া কেনা হবে ২হাজার ৬১৮মেট্রিন টন ধান। ১মে থেকে ক্রয় শুরু হলেও গত ৩৯দিনে খাদ্য গুদামে চাল সংগ্রহ হয়েছে মাত্র দেড় হাজার মেট্রিক টনের একটু বেশি।
খাদ্য বিভাগ সুত্র জানায় চাল কেনার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের মধ্যে নীলফামারী সদরে ৪হাজার ৮৯৫মেট্রিক টন, সৈয়দপুরে ২হাজার ২৭৮মেট্রিক টন, ডোমার ও চিলাহাটিতে ৪হাজার ১৬০মেট্রিক টন, জলঢাকায় ৩হাজার ৮০৭মেট্রিক টন, ডিমলায় ২হাজার ৭২৬মেট্রিক টন এবং কিশোরগঞ্জ উপজেলায় ৫৮১মেট্রিক টন।
জেলার ৫৬৫জন মিলারের মধ্যে ৪৮৮জন মিলার চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন গত ২৬মে পর্যন্ত। চুক্তিবদ্ধদের মধ্যে অটোরাইস মিল মালিক রয়েছেন ১২জন।
সংশ্লিষ্ঠরা মনে করছেন শ্রমিক সংকটের কারণে কৃষকরা সময়মত বোরো ধান কেটে ঘরে তুলতে পারেননি যার কারণে ধান সংগ্রহ করতে হিমশিম খেতে হয়েছে মিল চাতাল ব্যবসায়ীদের। তবে কৃষি বিভাগ বলছে, আজ থেকে অন্তত সাতদিন আগে বোরো ধান ঘরে তুলেছেন কৃষকরা। এখন তারা ব্যস্ত আমন চাষাবাদের জন্য বীজতলা তৈরির কাজে।
নীলফামারী সদর উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা আব্দুল জলিল মন্ডল জানান, এবারের বোরো মৌসুমে চাল ৩১টাকা এবং ধান দান ২০টাকা কেজি দরে কেনা হচ্ছে। আগামী ৩০আগষ্ট পর্যন্ত ক্রয় সংগ্রহ অভিযান চলবে গোটা জেলায়।
তিনি মনে করেন, শ্রমিক সংকটের কারণে মিল চাতাল মালিকরা পড়েছেন বেকায়দায় তারপরও সময়মত সংগ্রহ অভিযান সফল হবে।
এদিকে গত বোরো মৌসুমে নীলফামারী জেলায় চাল কেনার লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১৬হাজার ৯৩৯মেট্রিক টন। চলতি মৌসুমে রবিবার পর্যন্ত ধান সংগ্রহ হয়েছে জেলার সাতটি খাদ্য গুদামে ১২মেট্রিক টনের একটু বেশি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ