• সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৫৭ পূর্বাহ্ন |

চাঁপারানী হত্যা মামলায় উত্ত্যক্তকারী দেবাশীষের মৃত্যুদণ্ড

Chaparaniসিসিনিউজ: ফরিদপুরের চাঞ্চল্যকর চাঁপারানীকে হত্যার দায়ে মামলার প্রধান আসামি দেবাশীষ সাহা ওরফে রনিকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়েছে। আজ সোমবার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আনোয়ারুল হক এ রায় ঘোষণা করেন।
দেবাশীষকে একই সাথে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ মামলার অপর দুই আসামি সঞ্জয় বিশ্বাস ও মো. আলমগীর হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের খালাস দিয়েছেন আদালত।
মামলার রায়ে বিচারক মো. আনোয়ারুল হক বলেন, রাষ্ট্রপক্ষ মামলাটি প্রমাণ করতে সমর্থ হয়েছে। আসামি দেবাশীষ সাহা পলাতক। তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আনা অভিযোগ সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় তাকে দণ্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেয়া হলো। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হলো।’
রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে চাঁপারানীর স্বামী স্বপন বিশ্বাস বলেন, এ রায়ে আমরা সন্তুষ্ট। তবে পলাতক আসামিকে যত দ্রুত সম্ভব গ্রেফতার করে রায় কার্যকর করার উদ্যোগ নিতে হবে।
নিহত চাঁপারানী ফরিদপুর চিনিকলে মুদ্রাক্ষরিক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তাঁর দুই যমজ মেয়ে হিরা বিশ্বাস ও মুক্তা বিশ্বাস চিনিকল উচ্চবিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। হিরাকে নানাভাবে উত্ত্যক্ত করত একই এলাকার দেবাশীষ। চাঁপারানী এ ব্যাপারে স্থানীয় সামাজিক দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের কাছে বিচার চাওয়ায় ক্ষুব্ধ হন দেবাশীষ। এর জের ধরে ২০১০ সালের ২৬ অক্টোবর বিকেলে চাঁপারানীকে মোটরসাইকেল চাপা দিয়ে হত্যা করেন দেবাশীষ। পরদিন চাঁপারানীর ভাই অরুণ কুমার ভৌমিক বাদী হয়ে মধুখালী থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।
দেবাশীষ হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে ২০১২ সালের ২৭ আগস্ট থেকে পলাতক। হাইকোর্ট সর্বশেষ ২০১৩ সালের ৯ অক্টোবর দেবাশীষের জামিনের মেয়াদ আরো এক বছরের জন্য বাড়ান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ