• সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৪৩ পূর্বাহ্ন |

বদরগঞ্জে ভারী বর্ষনে ভেসে গেছে চাপড়ার বিলের মাছ

Badargang photo 2-11-06-14বদরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি: রংপুরের বদরগঞ্জে গত কয়েকদিনের ভারী বর্ষনে চাপড়ার বিলের পাড় ভেঙ্গে লাখ লাখ টাকার মাছ পানিতে ভেসে গেছে। সর্বশান্ত মৎস্যজীবিরা তাদের একমাত্র জীবিকা নির্বাহের পথ বন্ধ হওয়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। ভুক্তভোগী ওই মৎস্যজীবিরা কোন পথ না পেয়ে উপজেলা মৎস্য অফিসারকে বিষয়টি অবগত করেন। এরপর মৎস্য কর্মকর্তা বিলটি পরিদর্শনে যান। সেখানে গিয়ে তিনি মৎস্যজীবিদের সহায়তা করার আশ্বাস দেন। কিন্তু এরপরও নিঃস্ব ওই মাছ চাষীদের হতাশা কাটেনি।
আজ বুধবার সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, উপজেলার লোহানীপাড়া ইউনিয়নের চাপড়ার বিলটি গত বছর  টেন্ডারের মাধ্যমে লোহানীপাড়া মহদীপুর মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি তিন বছরের জন্য সরকারের কাছ থেকে লীজ নেয়। এরপর থেকে তারা ওই বিলে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ চাষ করে আসছিল। কিন্তু বিলে পানি না থাকায় মাছ চাষে সাফল্য আনতে পারেনি তারা। ওই সমিতির মৎস্যজীবিরা এ বছর আবারো ওই বিলে মাছ চাষ শুরু করলে গত কয়েক দিনের প্রবল বর্ষনে বিলের পাড় ভেঙ্গে সম্পুর্ণ মাছ ভেসে যায়। এতে তাদের প্রায় ৭লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সর্বশান্ত ওই মৎস্যজীবিদের একমাত্র জীবিকা নির্বাহের পথ বন্ধ হওয়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। ভুক্তভোগী ওই  মৎস্যজীবিরা কোন পথ না পেয়ে উপজেলা মৎস্য অফিসারকে বিষয়টি অবগত করেন। এরপর মৎস্য কর্মকর্তা বিলটি পরিদর্শনেও যান। সেখানে গিয়ে তিনি মৎস্যজীবিদের সহায়তা করার আশ্বাস দেন। এরপরও নিঃস্ব ওই মাছ চাষীদের হতাশা কাটেনি।
মৎস্য সমিতির সভাপতি তাজ উদ্দিন বলেন, বিলটি নেওয়ার পর খরার কারনে প্রথম বছর আমাদের বড় ধরনের লোকসান গুনতে হয়েছে। এ বছর আবারো আমরা ওই বিলে অনেক কষ্টে মাছচাষ শুরু করি। কিন্তু গত তিন দিনের প্রবল বর্ষনে বিলের পাড় ভেঙ্গে সম্পুর্ণ মাছ ভেসে গেছে। এখন আমরা সর্বশান্ত। সরকার যদি আমাদের সহযোগিতা না করে তাহলে আমারা আর মাছচাষ করতে পারবো না এবং জীবিকা নির্বাহের একমাত্র পথ সেটিও বন্ধ হয়ে যাবে।
এ বিষয়ে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান চৌধুরীর সাথে মঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, কয়েকদিনের ভারী বর্ষনে এ উপজেলার চাপড়ার বিলসহ বেশ কিছু বিলের মাছ ভেসে গেছে। এতে মৎস্যজীবিদের অনেক টাকার ক্ষতি হয়েছে। ইতিমধ্যে আমি চাপড়ার বিলসহ কয়েকটি বিল পরিদর্শন করেছি। যাতে করে সরকারীভাবে আর্থিক সহযোগিতা পাওয়া যায়, সেজন্য উর্দ্ধত্বন কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ