• শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০১:২১ পূর্বাহ্ন |

বকশীগঞ্জে দপ্তরী নিয়োগে বাণিজ্যের অভিযোগ

Takaবকশীগঞ্জ (জামালপুর) সংবাদদাতা: জামালপুরের বকশীগঞ্জে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম নৈশ্য প্রহরী পদে আউট সোর্সিয়ের মাধ্যমে জনবল নিয়োগে অর্ধকোটি টাকার নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। এ টাকার ভাগ উপজেলা আওয়ামীলীগের একটি সিন্ডিকেট চক্র, উপজেলা শিক্ষা কমিটি, শিক্ষা অফিস, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, সদস্য সচিবের পকেটে গেছে। নিয়োগ বাণিজ্য নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে কয়েকটি বিদ্যালয়ের উক্ত পদের প্রার্থীরা পরীক্ষা বর্জন করেছেন। ফলে এই নিয়োগ বাণিজ্য নিয়ে বিস্ময় আর ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে তৃণমূল পর্যায়ের আ.লীগ নেতাকর্মীদের মাঝে। জানা গেছে, সম্প্রতি উপজেলার ১৬ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম নৈশ্য প্রহরী পদে জনবল নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি জারী করা হয়। এরমধ্যে ম্যানেজিং কমিটির দ্বন্দ্বের কারণে ২টি বিদ্যালয়ের নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত করা হয়। সেমতে বাকি ১৪ টি বিদ্যালয়ে ১ টি পদের বিপরীতে ৭৬ জন বৈধ প্রার্থীর আবেদন জমা পড়ে। এরই সূত্র ধরে যারা আবেদন করেছে তাদের কাছ থেকে বিদ্যালয় কমিটির সভাপতি , সরকারি দলের ওই  সিন্ডিকেটটি রাঘব বোয়ালের মত নিয়োগ বাণিজ্যে লিপ্ত হয়ে প্রায় অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। গত ১০ জুন ও ১১ জুন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ে উল্লেখিত পদে ১৪ টি বিদ্যালয়ের পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়। নিয়োগ বাণিজ্যের কারণে চাকুরী না হওয়ার আশঙ্কায় কয়েকটি বিদ্যালয়ের ২৮ জন প্রার্থী পরীক্ষা বর্জন করে। অপরদিকে ৫ টি বিদ্যালয়ে দলীয় প্রভাব বিস্তার ,ভয়ভীতি প্রদর্শন ও লাখ লাখ টাকার ডংকা বেঁজে উঠায় ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও নিরীহ প্রার্থীরা পরীক্ষা দিতে পারে নি। সূত্রমতে জানা গেছে, সাধুর পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৬ জন আবেদন কারীর মধ্যে ও মেসের চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫ জন প্রার্থীর মধ্যে মাত্র ১ জন করে প্রার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে। ধাতুয়া কান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫ জন, বকশীগঞ্জ উত্তর বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫ জনের মধ্যে  পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে  ২ জন  করে। অথচ প্রতিটি পরীক্ষায় একটি প্যানেল তৈরি করতে হলে সর্বনিম্ন ৩ জন প্রার্থীর অংশ গ্রহণ হতে হবে। নানা অনিয়মের মধ্যে পরীক্ষা হলেও অজ্ঞাত কারণে পরীক্ষার ফলাফল গোপন রাখা হয়েছে। নিয়োগ বাণিজ্যের কারণে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার আসাদুজ্জামান জানান, নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। ফলাফল প্রকাশ না করা পর্যন্ত কোন কিছু বলা যাবে না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ