• শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ০৩:৫৪ অপরাহ্ন |

শিশু শ্রম প্রতিরোধ দিবস: সৈয়দপুরে শিশু শ্রমিকের সংখ্যা বাড়ছে

c-lebarরইজউদ্দিন রকি, সিসিনিউজ: “সামাজিক নিরাপত্তার প্রসার ঘটান, শিশু শ্রম নিরসন করুন” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে নীলফামারীতে বিশ্ব শিশু শ্রম প্রতিরোধ দিবস উদযাপিত হয়েছে বৃহস্পতিবার।
চাইল্ড লেবার এলিমিনেশন এ্যাকশন নেটওয়ার্ক(কিন) নীলফামারী জেলা কমিটির আয়োজনে সকালে বনার্ঢ্য র‌্যালি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে শিশু একাডেমী মিলনায়তনে গিয়ে আলোচনা সভায় মিলিত হয়।
ইএসডিও নীলফামারীর প্রকল্প সমন্বয়কারী আবু বক্কর সিদ্দিকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোছাঃ নুরুন্নাহার বেগম, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মোস্তাক আহমেদ, নীলফামারী শ্রম কল্যান বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শামীমা বেগম প্রমূখ।

অপরদিকে, নীলফামারী জেলার সৈয়দপুরে শিশু শ্রমিকের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। অভাবের তাড়নায় পড়ালেখা বঞ্চিত শিশু শ্রমিকরা দিনরাত পরিশ্রম করে জীবিকা নির্বাহ করছে।
সৈয়দপুর শহর ঘুরে দেখা গেছে, হতদরিদ্র পরিবারের ছোট ছোট শিশুরা অভাব ও পেটের ুধা নিবারণের জন্য ইটভাঙ্গা, রিকশা চালানো, হোটেল-রেস্টুরেন্টে, ওয়েল্ডিং কারখানায়, মোটরসাইকেলের গ্যারেজসহ বিভিন্ন গুল ফ্যাক্টরি, চকলেট, চিপস ফ্যাক্টরিতে কাজ করতে দেখা যায়। ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করছে তারা। এদের সামান্য ভুলের জন্য বকাঝকা এমনকি অনেক সময় মারধরও করা হয়। অনেক সময় কাজ থেকে তাড়য়ে দেয়া হয়। এসব শিশুরা ন্যায্য পারিশ্রমিক থেকেও বঞ্চিত হচ্ছে। শিশু শ্রমিকদের অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে অনেক মালিক তাদের স্বার্থ উদ্ধার করছে।
শিশু শ্রম আইনত নিষিদ্ধ হলেও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মালিকরা নিজেদের প্রয়োজনে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তাদের নিয়োজিত করছে। শিশু-কিশোরদের স্কুলে পাঠানোর মত আর্থ-সামাজিক সঙ্গতি এ শহরের অনেক পরিবারের নেই। তাদের অভাব আর দারিদ্রের তাড়নায় হাজার হাজার শিশু-কিশোর গ্রাম থেকে শহরে এসে ভিড় করছে। অভাবের কারণে তারা কঠিন কাজ করলেও ন্যায্য মজুরি পাচ্ছেন না। অপরদিকে শিশু শ্রম বন্ধের ব্যাপারে কেউ কোনো উদ্যোগ নিচ্ছেন না। ফলে এই শহরে শিশুশ্রম বেড়েই চলেছে। যে সময় এ শিশুদের হাতে থাকার কথা খাতা, কলম আর বই সে সময় অভাবের কারণে তারা হাতে নিয়েছে রিকশার হ্যান্ডেল, বাদামের ঝুড়ি কিংবা ইট-পাথর ভাঙ্গার হাতুরি। কেউবা কাজ করছে হোটেল-রেস্টুরেন্টে কেউবা কাজ করছে রফতানিমুখী কারখানাগুলোতে। ফলে নষ্ট হচ্ছে এসব শিশুদের মধ্যে লুকিয়ে থাকা অনেক সুপ্ত  প্রতিভা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ