• বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০১:২৫ পূর্বাহ্ন |

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ফখরুজ্জামান চৌধুরী আর নেই

Fokrujamanঢাকা: বাংলাদেশ টেলিভিশনের সাবেক পরিচালক (প্রশাসন), বিশিষ্ট লেখক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ফখরুজ্জামান চৌধুরী আর নেই। বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় রাজধানী উত্তরার ১২ নম্বর সেক্টরের নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেন তিনি। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। তিনি দীর্ঘ দিন ধরে শ্বাসকষ্টজনিত রোগে ভুগছিলেন। ফখরুজ্জামান চৌধুরী বিশিষ্ট নাট্যাভিনেত্রী দিলারা জামানের স্বামী। তিনি আমেরিকা ও কানাডা প্রবাসী দুই মেয়ে এবং বহু আত্মীয়, গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তার লাশ বারডেমে মরচুয়ারিতে রাখা হয়েছে। আজ শুক্রবার বাদ জুমা উত্তরা ১২ নম্বর সেক্টর জামে মসজিদে মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বলে পারিবারিক সূত্রে জানানো হয়েছে। এরপর তাকে ১২ নং সেক্টর কবরস্থানে দাফন করা হবে।
শতাধিক গ্রন্থের লেখক, অনুবাদক এই প্রবীণ সাহিত্যিক সাহিত্যে অবদানের জন্য বাংলা একাডেমি পুরস্কারে ভূষিত হন। ফখরুজ্জামান চৌধুরীর মৃত্যুতে সাহিত্য-সংস্কৃতি অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে আসে। রাতেই তার উত্তরার ফ্যাটে ছুটে যান অনেকে। প্রখ্যাত চলচ্চিত্র সাংবাদিক ও সিনে সাপ্তাহিক চিত্রালীর সম্পাদক আহমদ জামান চৌধুরীর অগ্রজ ফখরুজ্জামান চৌধুরী। সাহিত্যিক হিসেবে ষাটের দশক থেকে তিনি বিশ্বসাহিত্যের বহু সাড়া জাগানো গ্রন্থ অনুবাদের পাশাপাশি শিশুসাহিত্য, গল্প, প্রবন্ধ, স্মৃতিকথা, রম্যরচনাসহ নানাবিধ বিষয়ে দীর্ঘ প্রায় ৫০ বছর লেখালেখি করেছেন।
বাংলা একাডেমি পুরস্কার ছাড়াও শিশুসাহিত্যে অবদানের জন্য তিনি অগ্রণী ব্যাংক শিশুসাহিত্য পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। তার উল্লেখযোগ্য গ্রন্থের মধ্যে রয়েছেÑ অঙ্কুশ ঐরাবত, রিপভ্যান উইঙ্কেল অন্যতম। প্রকাশিত গ্রন্থ : কবিতা; আনাবাজ (১৯৮৬); দূরদিগন্ত (১৯৮৬); প্যালেস্টাইন প্রতিরোধের কবিতা (১৯৯৪)। উপন্যাস; জনারণ্যে কয়েকজন (১৯৯০); একা ও একাকী (১৯৯৪)। নাটক : ইয়ারমা (১৯৯১)। প্রবন্ধ-গবেষণা : লেখকের কথা (প্রথম খণ্ড ১৯৯২, দ্বিতীয় খণ্ড ২০০৩)। শিশুসাহিত্য : হাড় কিপটে বুড়ি (১৯৫৬); রিপভ্যান উইংকল (১৯৫৬); রাজা আর্থারের দরবারে (১৯৬৮); যাদুর রাজা হুডিনি (১৯৮৮); আঙ্কল টমস কেবিন (১৯৯৩); হাঞ্চ ব্যাংক অব নটর ডেম (১৯৯৫); ট্রেজার আইল্যান্ড (১৯৯৮), রাউন্ড দ্য ওয়ার্ল্ড ইন এইটি ডেইজ (১৯৯৩)। জীবনী : ডিলান টমাস (১৯৮৫); আশরাফ আলী খান (১৯৮৮); আজিজুর রহমান (১৯৮৯)। ইতিহাস : অবিচার (১৯৮৪); ঐরাবত ও অঙ্কুশ (১৯৯৩)। অনুবাদ : বিকিকিনির প্রেম (১৯৯২)। হে দুঃখ বিদায় (১৯৯৩); রবিনসন ক্রুশো (২০০৬)।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ