• সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ১০:২৪ পূর্বাহ্ন |

আকাশে যত তারা, পুলিশের তত ধারা

Manobadikarঢাকা: জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক বলেছেন, ‘আকাশে যত তারা, পুলিশের তত ধারা। তারপরও কেন প্রবীণদের অধিকার আইন শৃঙ্খলাবাহিনী রক্ষা করতে পারছে না সেটাই আমার কৌতুহল। ২০১৩ সালে সরকার প্রবীণদের অধিকার সংরক্ষণে একটি আইন পাশ করেছিল। যেখানে বলা ছিল, কোনো সন্তান যদি তার বাবা-মায়ের সঙ্গে অসদাচরণ করে, আর তা যদি ওই বাবা-মা অভিযোগ আকারে প্রশাসনকে জানায় তাহলে অবশ্যই ওই সন্তানের ১ লাখ টাকা জরিমানা অথবা ৩ বছরের জেল হবে।’

শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে এক আলোচনা সভায় কাজী রিয়াজুল হক এসব কথা বলেন।

বিশ্ব সচেতনতা দিবসে ‘প্রবীণদের প্রতি অসদাচরণ এবং আমাদের করণীয়’ শীর্ষক এ আলোচনা সভাটি যৌথভাবে আয়োজন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট ,বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন (বিজিএ) এবং এজিং সাপোর্ট ফোরাম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কাজী রিয়াজুল হক বলেন, ‘আমাদের সবাইকেই মনে রাখতে হবে যে, আমরাও একদিন প্রবীণ হব। তাই প্রবীণদের সঙ্গে আজ আমরা যেমন ব্যবহার করবো, ভবিষ্যতে আমরাও তেমনটিই পাবো।’

তিনি প্রবীণদের জন্য তৈরি করা আইনের সমালোচনা করে বলেন,‘ এই আইনে বলা আছে, বাবা-মা নিজে অভিযোগ করলে সেই সন্তানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। কিন্তু পৃথিবীর কোনো বাবা-মা কি চান যে তার সন্তান জেলে যাক। তাই আমি মনে করি এই আইনের সংযোজন হওয়া দরকার। এখানে শুধু বাবা-মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতেই অভিযুক্তের সাজা না দিয়ে আইনটা এমন হওয়া দরকার যে, কোনো প্রবীণের সঙ্গে তার সন্তান যদি খারাপ আচরণ করে তবে পাশের যে কেউই পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করতে পারবেন।’

প্রধান বক্তার বক্তব্যে কলামিস্ট আবুল মকসুদ বলেন, ‘আমাদের সমাজে সব সময় প্রবীণদের দূরে সড়িয়ে রাখা হয়। এতে করে নবীণ ও প্রবীণদের মাঝে একটি মানসিক দুরত্ব সৃষ্টি হচ্ছে। যার ফলশ্রুতিতে প্রবীণরা সর্বদায় নবীনদের কাছে অবহেলার পাত্র হয়ে যান।’

প্রবীণদের প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, ‘বার্ধক্য কোনো রোগ নয়, এটি মানুষের শেষ পরিণতি। তাই এটাকে রোগ ভেবে তাদের দূরে সড়িয়ে দেয়া উচিৎ না। বরং নবীনদের উচিৎ যতটা সম্ভব প্রবীণদের সময় দেয়া।’

অনুষ্ঠানে আবুল মকসুদের হাতে সংবর্ধনা ক্রেস্ট তুলে দেন বাংলাদেশ প্রবীণ হিতৈষী সংঘের সভাপতি মো. নজরুল ইসলাম।

নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভার সঞ্চালনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ কল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড.এ এস এম আতীকুর রহমান। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন, ডেফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক মাসুদ ইবনে রহমান, হেল্প এইজ ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর নির্ঝরানী হাসান, অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসার্স কল্যান সমিতির সভাপতি ড.এম এনামুল হক প্রমুখ।

বাংলামেইল


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ