• সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০৯:৫৩ পূর্বাহ্ন |

মিশরস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের সব কর্মকর্তাকে ইরাকে বদলি

11আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মিশরের বিভিন্ন জেলায় প্রায় ৪০ হাজার বাংলাদেশি শ্রমিকের বসবাস। বাংলাদেশ সরকারের বিশেষ কোনো নজর না থাকায় দীর্ঘদিন ধরেই অবহেলিত মিশরে বসবাসকারী এই ৪০ হাজার শ্রমিকসহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত প্রায় ৩৫০ জন শিক্ষার্থী।

বিশ্ববিখ্যাত আল-আযহার বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃতিত্বের সঙ্গে পাস করে দেশের নাম সমুন্নত করলেও দুই দেশের কূটনৈতিক ব্যর্থতার কারণে মিশরে বাংলাদেশি ছাত্রদের আগমন প্রায় বন্ধ হতে চলেছে। গার্মেন্টস সেক্টরে বাংলাদেশি শ্রমিকদের ভাল চাহিদা থাকা সত্ত্বেও বাংলাদেশি আসাও বন্ধ আছে দুই বছর ধরে।

অনেক দুঃখ-কষ্ট সহ্য করে অভিজ্ঞতা অর্জনের পর ছাত্রদের টুকটাক লেখালেখির ফল হিসেবে কায়রস্থ দূতাবাসের বর্তমান স্টাফ মোটামুটি বাংলাদেশি কমিউনিটিবান্ধব। বেশ কিছুদিন ধরে অফিসাদের ছাত্র এবং শ্রমিকদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখে কাজ করতে যথেষ্ট আগ্রহীই দেখা যায়।

বিশেষ করে বছর খানেক আগে যোগদান করা শ্রম বিষয়ক দ্বিতীয় সচিব রফিকুল ইসলাম শ্রমিকদের সব সমস্যা সমাধানের এগিয়ে আসছিলেন। অল্পদিনেই মিশর প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভালবাসার পাত্রে পরিণত হন তিনি। তাকে পেয়ে যেন একজন সত্যিকারের অভিভাবক পায় এই অবহেলিত প্রবাসীরা।

কিন্তু হটাৎ করে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে রাফিকুল ইসলামসহ দূতাবাসের অভিজ্ঞ সকল কর্মীদের বদলির নোটিশ আসে। এতে বাংলাদেশি শ্রমিকদের মাঝে হতাশা দেখা দেয়।

মিশরে রফিকুল ইসলামের প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে ”বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ ফোরাম, মিশর” বাংলাদেশ দূতাবাসে অবস্থান করে তার বদলির আদেশ বাতিল করতে রাষ্ট্রদূত মারফতে বাংলাদেশ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় বরারবর একটি পত্র পাঠালেও কোনো কাজ হয়নি।

ফলে নতুন কর্মকর্তারা এই দরিদ্র শ্রমিকদের সঙ্গে কেমন ব্যবহার করবেন এবং তাদের প্রয়োজন কতটুকু মেটাতে পারবেন এটা ভেবে সবাই এখন চিন্তিত।

কারণ, অতীতের রেকর্ড খুব একটা ভাল না। রাষ্ট্রদূতের মৃত কুকুরের কবরে ফুল দিতে দূতাবাসের কর্মকর্তা পাঠিয়ে দূতাবাসকে শ্বশান বানানোর অভিজ্ঞতাও রয়েছে এই মিশর প্রবাসী বাংলাদেশিদের। শীর্ষ নিউজ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ