• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৫৬ অপরাহ্ন |

ফিলিস্তিনে ঈদ ও ইসরাইলি হামলা চলছে!

gazzaআন্তর্জাতিক ডেস্ক: আরবীয় দেশের ন্যায় ফিলিস্তিনেও পবিত্র ঈদুল ফিতর পালিত হচ্ছে সোমবার। ইতোমধ্যে হামাস ‘জাতিসঙ্ঘের মানবিক যুদ্ধবিরতি’তে সম্মতি দিলেও ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু যুদ্ধবিরতি নাকচ করে দিয়েছে। ইসরাইলি হামলার কারণে মানবেতর জীবন-যাপন করার পর স্বস্তিতে ঈদ করার সুযোগও পাচ্ছে না ফিলিস্তিনিরা। এ যেন মানব ইতিহাসের সব থেকে কালো দিন। -আলজাজিরা, আলআরাবিয়া।

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জাতিসঙ্ঘ মহাসচিব মান কি মুন সোমবার ভোরে এক জরুরি বৈঠকে ইসরাইলকে যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানান। তিনি বলেন, মানবিক কারণে অন্তত পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযপনের জন্য হলেও যুদ্ধবিরতি মানা উচিৎ।

গাজা এখন কার্যত ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে। সারা বিশ্বের মুসলমানরা ঈদ উদযাপন করতে পারলেও গাজার মুসলমানদের ভাগ্যে সে সুযোগও হচ্ছে না।

গাজায় বিমান হামলা ও স্থল হামলা অব্যাহত রেখেছে ইসরাইল। শেষ পর্যন্ত কোনো উপায় না পেয়ে হামাসও ইসরাইলে রকেট হামলা চালাচ্ছে। হামাস ইসরাইলের কিসুফিম, আশকেলোন ও আশদোদ শহরে রকেট হামলা চালাচ্ছে।

জাতিসঙ্ঘ ও আমেরিকার কোনো প্রস্তাবই মানছে না ইসরাইল ও হামাস। কারণ হামাস যুদ্ধবিরতির ঘোষণা দিলেও ইসরাইল ঈদের দিনেও তাদের হামলা অব্যাহত রেখেছে।

ফিলিস্তিরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসেব অনুযায়ী এ পর্য ১০৫০ জনের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। যাদের মধ্যে ৮০ ভাগই নারী ও শিশু।

অপর দিকে তেল আবিব জানিয়েছে, হামাসের হামলায় তাদের ৪৩ জন সেনা নিহত হয়েছে। এছাড়া আরো দুই বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে একজন কোরীয় নাগরিক রয়েছে। তবে হামাসের দাবি তার ৯০ জন ইসরাইলি সেনাকে হত্যা করেছে। কিন্তু ইসরাইল তাদের সঠিক হিসেব দিচ্ছে না।

ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু বলেছেন, ‘ইসরাইলিদের রক্ষার জন্য যা প্রয়োজন তার সবই করবেন তিনি।’

অপরদিকে হামাস নেতা খালেদ মাশাল বলেছেন, ‘ইসরাইলের সাথে সহাবস্থান করা সম্ভব নয়। সে কারণে ইসরাইলের বিরুদ্ধে হামাসের লড়াই অব্যাহত থাকবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘বাতিলের সাথে যুদ্ধ করে বিজয় আমাদের আসবেই।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ