• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৩৯ অপরাহ্ন |

উদ্ধার হয়নি পদ্মায় ডুবে যাওয়া পিনাক-৬, মৃতদেহ ৩১

Gazaria-Meghna-River-lancadubi-16-05-2014-13-620x3751-e1407329811192মুন্সীগঞ্জ: চতুর্থদিনেও উদ্ধার হয়নি পদ্মায় ডুবে যাওয়া পিনাক-৬ লঞ্চটি। অনুসন্ধানী জাহাজ কাণ্ডারী-২ এর কর্মীরা বুধবার দিনগত রাতে অনুসন্ধান কাজ শুরু করে। তবে মূল অভিযান শুরু হয় বৃহস্পতিবার ভোর ৫টা থেকে।

কাণ্ডারী-২ এর পরিচালক কমান্ডার মঞ্জুর বলেন, প্রাথমিক সরঞ্জাম নিয়ে রাতে ঘটনাস্থলের আশপাশে প্রাথমিক অনুসন্ধান চালানো হয়। লঞ্চটি ডুবে যাওয়ার স্থান থেকে ৮ কিলোমিটার পর্যন্ত শনাক্তকরণ কাজ শুরু হয়। এতে সময় লাগতে পারে ৩ থেকে ৪ দিন।

অনুসন্ধানী জাহাজটি চাদঁপুর সীমানায় প্রবেশের পর লঞ্চডুবির স্থান থেকে পদ্মার ৫ কিলোমিটার ভাটি অঞ্চল পর্যন্ত অনুসন্ধান চালায়।

প্রসঙ্গত, উদ্ধারকারী জাহাজ কাণ্ডারীতে রয়েছে উন্নত প্রযুক্তির যন্ত্রপাতি। এতে রয়েছে সাইড স্ক্যান সোনার, গ্লোবাল পজিশনিং সিস্টেম, সাব বটম প্রোপেলার নামে স্ক্যানার রয়েছে। যার মাধ্যমে লঞ্চটি পলিতে ঢাকা পড়ে গেলে বা স্রোতের কারণে মাটির নিচে চলে গেলেও খুঁজে বের করা সম্ভব হবে। এ স্ক্যানার পলির ৭০ ফিট নিচে এবং বালির ১৮ ফিট নিচ পর্যন্ত স্ক্যান করতে পারে। এতে যে ধরনের প্রযুক্তি রয়েছে তাকে লঞ্চটি শনাক্ত করা সম্ভব হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে, বৈরি আবহাওয়ায় সাগর উত্তাল থাকার কারণে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন জাহাজ জরিপ-১১ ঘটনাস্থলে আসতে পারেনি। পিনাক-৬ শনাক্ত করতে কাণ্ডারী-২ ব্যর্থ হলে জরিপ-১১ জাহাজ তলব করা হতে পারে।

মৃতদেহের সংখ্যা: গত ৪ আগস্ট মাওয়া-কাওরাকান্দি রুটের পিনাক-৬ লঞ্চটি মাওয়ায় আসার পথে লৌহজং চ্যানেলে ডুবে যাওয়ার চতুর্থ দিনে পার হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধা ৭টা নাগাদ ৩১টি মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৬টি মৃতদেহ তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

উদ্ধার তৎপরতা: বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ), বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থা (বিআইডব্লিউটিসি), নৌবাহিনী, ফায়ার সার্ভিস ও কোস্ট গার্ডের সদস্যরা যৌথভাবে উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। ঘটনাস্থলে উদ্ধারকারী জাহাজ ‘নির্ভীক’ ও ‘রুস্তম’ রয়েছে। বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান শামসুদ্দোহা খান জানিয়েছেন, ডুবে যাওয়া লঞ্চের খোঁজে প্রায় ২০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে অনুসন্ধান চালানো হয়েছে। বুধবার দিনগত রাতে কাণ্ডারি-২ জাহাজ মাওয়া ঘাটে পৌঁছে। এরপর মধ্যরাত থেকে শুরু করে অনুসন্ধান।

শোকের মাতম: নিখোঁজ স্বজনদের জীবিত বা মৃত পাওয়ার জন্য মাওয়ার ঘাটে অপেক্ষা করছে শত শত মানুষ। তাদের আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠেছে পদ্মাপাড়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ