• শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৯:১৬ অপরাহ্ন |

দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের এইচএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ ॥ পাশের হার ৭৪ দশমিক ১৪ শতাংশ

Holyland Collge Pic copyমাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর: দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত ২০১৪ সালের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। গড় পাশের হার ৭৪.১৪ শতাংশ। বুধবার দুপুর ১ টায় দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোঃ তোফাজ্জুর রহমান আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন।
দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শক্ষাবোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত ২০১৪ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় ৯৮ হাজার ৩৭৩ পরীক্ষার্থীর মধ্যে পরীক্ষায় উপস্থিত ছিল ৯৭ হাজার ৩৩। এদের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৭১ হাজার ৯৪০ জন পরীক্ষার্থী। গড় পাশের হার ৭৪.১৪ শতাংশ। ছাত্রদের তুলনায় ছাত্রীদের গড় পাশের হার বেশী। ছাত্রীদের পাশের হার ৭৫.৭৪ শতাংশ ও ছাত্রদের পাশের হার ৭২.৬৩ ভাগ। মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ হাজার ৪৭৪ জন শিক্ষার্থী। তবে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ছাত্র দের সংখ্যা কম। ছাত্রীদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৯০২ জন ও ছাত্রদের মধ্যে ২ হাজার ৫৭২ জন।
বিজ্ঞান বিভাগে ২১ হাজার ২৯২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ন হয়েছে ১৫ হাজার ৬২৮ জন। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৮৭২ জন। বিজ্ঞান বিভাগের গড় পাশের হার ৭৪.৫৭ শতাংশ।  মানবিক বিভাগে ৫৯ হাজার ৫৬২ জনের মধ্যে ৪২ হাজার ১৯৬ জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ন হয়েছে। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৪১ জন। মানবিক বিভাগে গড় পাশের হার ৭১.৭৭ শতাংশ। ব্যবসায়  শিক্ষা বিভাগে ১৭ হাজার ৫১৯ জনের মধ্যে উত্তীর্ন হয়েছে ১৪ হাজার ১১৬ জন। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৬১ জন। এ বিভাগে গড় পাশের হার ৮১.৬৯ শতাংশ । বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে গড় পাশের হার ৭৪.১৪ শতাংশ।
ফলাফল প্রকাশ করে দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোঃ তোফাজ্জুর রহমান বলেন, বিগত বছরের তুলনায় এবার ফলাফল তুলনামূলকভাবে ভাল হয়েছে। তবে এবারে কিছু কিছু ক্ষেত্রে ব্যর্থতা রয়েছে। যেমন ৪৪ জন পরীক্ষার্থী বহিষ্কার হয়েছে। ৭টি কলেজ  থেকে কোন পরীক্ষার্থী পাস করতে পারিনি। এটা আমাদের ব্যর্থতা হলেও সার্বিক দিক বিবেচনায় ফলাফল গতবারের তুলনায় এবার ভাল হয়েছে বলে তিনি দাবী করেন। তবে আগামীতে আরো ভাল ফলাফল উপহার দিবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি সাংবাদিকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।
এদিকে ২০০৯ সালে ৫৯ হাজার ৩৯৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩২ হাজার ৭২২ জন উত্তীর্ন হয়। গড় পাশের হার ছিল ৫৫.৯০ ভাগ। ২০১০ সালে ৭৩ হাজার ৮৯৮ জন পরীক্ষার্থী মধ্যে ৪৯ হাজার ২০২ জন উত্তীর্ন হয়। পাশের হার ছিল ৬৭.৫৪ ভাগ। ২০১১ সালে ৭৫ হাজার ৪৫৭ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ৪৮ হাজার ৬৮৫ জন। পাশের হার ছিল ৬৬.১৮ ভাগ, ২০১২ সালে ৮৭ হাজার ৫০৪ পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ৬৪ হাজার ৬৭৯ জন। পাশের হার ছিল ৭৫.৪১ ভাগ এবং ২০১৩ সালে ৮৮ হাজার হাজার  ৪৪৪ মধ্যে ৬৩ হাজার ৬২৪ জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়। পাশের হার ছিল ৭১.৯৪ ভাগ।
২০০৯ সালে শতভাগ পাশকৃত কলেজের সংখ্যা ছিল ৪টি, ২০১০ সালে ৫টি এবং ২০১১ সালে ৬টি, ২০১২ সালে ১২টি, ২০১৩ সালে ৮টি এবং ২০১৪ সালে শতভাগ পাসকৃত কলেজের সংখ্যা ১৭টি।
এবারে দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের অধীনে ১৭৮টি কেন্দ্রের মাধ্যমে ৮টি জেলার ৫৪১টি কলেজ পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে। ফলাফল ঘোষনা করার সময় দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের সচিব এম এ মজিদ, কলেজ পরিদর্শক মোঃ ফরাজ উদ্দীন, উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (মাধ্যমিক) মোঃ আরিফুল ইসলামসহ অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, দিনাজপুরে শিক্ষাবোর্ড প্রতিষ্ঠার পর এটি এ বোর্ডের অধীনে ষষ্ঠবারের মত এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ