• বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৬:২১ পূর্বাহ্ন |

কালোপতাকা মিছিলের পর ব্যাপক শোডাউনের প্রস্তুতি জামায়াতের

Jamatঢাকা : কালোপতাকা মিছিলের পর সম্প্রচার নীতিমালা বাতিলের দাবিতে ২০ দলীয় জোটের মঙ্গলবারের সমাবেশেও ব্যাপক শোডাউনের প্রস্ততি নিয়েছে জোটের অন্যতম শরিক জামায়াতে ইসলামী। ওই সমাবেশকে কেন্দ্র করে বিএনপিরও রয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি।

তাই বিএনপির সঙ্গেই তাল মিলিয়ে শোডাউন করতে চায় জামায়াত। যেখানে নিজেদের শক্তি প্রদর্শনেরও একটি বিষয় রয়েছে। এর আগে ১৬ আগস্ট গাজা ইস্যুতে কালো পতাকা মিছিলেও ব্যাপক শোডাউন করেছিল জামায়াত-শিবির।

যদিও আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০০৯ সাল থেকে সরকারি বাধায় এককভাবে প্রকাশ্যে কোনো কর্মসূচি পালন করতে পারেনি দলটি। তবে জোটের কর্মসূচিতে বরাবরই তাদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো।

আর এই ধারবাহিকতা বজায় রাখতে মঙ্গলবারের সমাবেশ সফল করতে নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দিয়েছেন দলটির ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান। রোববার এক বিবৃতিতে এ নির্দেশ দেন তিনি।

এছাড়া সমাবেশ সফল করতে সোমবার সন্ধ্যায় এক বিবৃতিতে নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরীর আমির মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান।

মঙ্গলবারের সমাবেশের প্রস্তুতির বিষয়ে জানতে চাইলে জামায়াতের ছাত্র সংগঠন শিবিরের এক কেন্দ্রীয় নেতা জানান, সমাবেশ সফল করতে এরই মধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে তারা। কালোপতাকা মিছিলের পর তারা ধরেই নিয়েছিলো সরকার সমাবেশেরও অনুমতি দেবে। তাই তখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। আর ঘরোয়াভাবে এ নিয়ে ঢাকা মহানগরীর প্রায় সব ওয়ার্ডে প্রস্তুতি বৈঠকও করেছিলো সংগঠনটি।

ওই শিবির নেতা জানান, আগামীতে জোটের যেকোনো কর্মসূচিতেই তাদের সরব উপস্থিতি থাকবে। তবে বিএনপির ভাব দেখেই মাঠে নামবেন তারা।

সহিংসতার বিষয়ে তিনি বলেন, আসলে আমরা কখনোই সহিংসতা চাই না। তবে সরকার বাধ্য করলে আমাদেরকে তো সেভাবেই এগুতে হবে।

সরকারের দমননীতির কারণে কর্মীদের মধ্যে কোনো আতঙ্ক আছে কীনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে কখনো হতাশা ছিল না। এবারও নেই।

এদিকে সমাবেশের ব্যাপারে জামায়াত নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে কেউ কথা বলতে রাজি হননি। তবে মহানগর পর্যায়ের এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ঢাকা মহানগর জামায়াত ও শিবিরের চারটি শাখাকে সকল জনবল নিয়ে সমাবেশে অংশ নেওয়ার জন্য কেন্দ্র থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

গ্রেফতার এড়াতে বিচ্ছিন্নভাবে মিছিল না করে কয়েক’শ বা হাজার নেতা-কর্মীদের একসঙ্গে আসতে বলা হয়েছে। তবে সেটি হবে অবশ্যই প্রত্যেক শাখার নেতাদের নির্দেশনা অনুযায়ী।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ