• বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৫৬ অপরাহ্ন |

চিরিরবন্দরে যৌন হয়রানী সংক্রান্ত অভিযোগ বাক্স বিতরন

Chirirbander Picদিনাজপুর প্রতিনিধি: জেলার চিরিরবন্দর উপজেলায় মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে যৌন হয়রানী সংক্রান্ত অভিযোগ গ্রহনের জন্য বাক্স বিতরন করা হয়েছে।
মঙ্গলবার উপজেলা বঙ্গবন্ধু হলে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের আয়োজনে ও উন্নয়ন সংস্থা প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ এবং বহুব্রীহির সহযোগিতায় প্রোটেকটিং হিউম্যান রাইটস প্রোগ্রামের সৌজন্যে উপজেলার সকল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে যৌন হয়রানী সংক্রান্ত অভিযোগ বাক্স বিতরন করা হয়। বিতরন অনুষ্ঠানে উপজেলা চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন মোল্লা, ভাইস চেয়ারম্যান নুরে আলম সরকার দুলু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তরুবালা রায়, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এএইচএম আরিফ মাহমুদ লোটাস, সাংবাদিক মোরশেদ উল আলম, পিএইচ আর প্রকল্পের প্রকল্প সমন্বয়কারী উম্মে কুলসুম বেবীসহ ৭৬টি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন। যৌরহয়রানী সংক্রান্ত কোন অভিযোগ থাকলে এসব বাক্সে ফেলবে অভিযোগকারীরা। পরে অভিযোগগুলো যাচাই-বাছাই করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে আয়োজকরা জানান।

সহকারি শিক্ষক সমিতির মতবিনিময়
১১ দফা দাবী আদায়ে দিনাজপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক সমিতির মতবিনিময় ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মঙ্গলবার স্থানীয় লোকভবন মিলনায়তনে বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক সমিতি দিনাজপুর জেলা শাখার আয়োজনে মতবিনিময় ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির আহবায়ক নাসরিন সুলতানা। অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহবায়ক ও জেলা শাখার আহবায়ক মো. গোলাম ফারুক’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহবায়ক মো. আবু দাউদ, মো. আব্দুল বাতেন, মো. হারুনুর রশীদ, এমএম সানোয়ার হোসেন। বোচাগঞ্জ উপজেলার শিক্ষক মো. নাজমুল হুদার সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সমিতির চিরিরবন্দরের আহবায়ক রুহুল আমিন, নবাবগঞ্জের আহবায়ক আজহারুল ইসলাম ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমিতির কেন্দ্রীয় সদস্য ও জেলা শাখার সদস্য সচিব মো. আব্দুল লতিফ।
অনুষ্ঠানে দিনাজপুর জেলার সকল উপজেলাসহ রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের প্রায় এক হাজার শিক্ষক অংশ নেন। বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক সমিতির ১১ দফা দাবীগুলোর মধ্যে জাতির ভবিষ্যত গঠনে শিক্ষকদের গুরুত্ব ও মর্যাদা বিবেচনায় নিয়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষকদের চাকুরীর পদমর্যাদা একই শ্রেণিভূক্ত করা, প্রধান শিক্ষক ও সহকারি শিক্ষকদের মধ্যকার বেতন বৈষম্য দূরীকরনে ২০০৫ সালের নীতিমালা অনুসরণ করে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের ১ ধাপ নিচে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারি শিক্ষকদের বেতন স্কেল ও প্রশিক্ষনবিহীন প্রধান শিক্ষকদের ১ ধাপ নিচে প্রশিক্ষণবিহীন সহকারি শিক্ষকদের বেতন স্কেল নির্ধারণ করা তথা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারি শিক্ষকদের বেতন গ্রেড ১২ এবং প্রশিক্ষণবিহীন সহকারি শিক্ষকদের বেতন গ্রেড ১৩ নির্ধারণ করা অন্যতম।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ