• মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৩০ পূর্বাহ্ন |

নীলফামারীতে অপহৃত শিশু দুই দিন পর রংপুরে উদ্ধার, আটক-৩

নীলফামারী প্রতিনিধি: নীলফামারীতে গৃহ পরিচারিকাকে হত্যা করে শিশু অপহরণের ঘটনার দুই দিন পর অপহৃত শিশু জুনায়েদকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহষ্পতিবার দুপুরে রংপুর সদর উপজেলার চন্দনপাট ইউনিয়নের শ্রীরামপুর এলাকার একটি বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করে রংপুর কোতয়ালী থানা পুলিশ। এসময় তিন অপহরণকারীকে আটক করে পুলিশ।
আটককৃতরা হলেন নীলফামারী জেলার জলঢাকা উপজেলার খুটামারা ইউনিয়নের টেঙ্গনমারী গ্রামের একাব্বর আলীরে ছেলে আনোয়ার হোসেন (৩২), একই গ্রামের মকবুল বেগের ছেলে মুকুল বেগ (১৬) ও  ওহেদুল ইসলামের ছেলে রাশেদুল (১৮)।
পুলিশ জানায়, অপহরণকারীদের মোবাইল ট্রাক করে তাদের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে এলাকাবাসীর সহায়তায় রংপুর সদর উপজেলার চন্দনপাট ইউনিয়নের শ্রীরামপুর এলাকার আব্দুর রশীদ নামের এক ব্যাক্তির বাড়ি থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে তাদের তিনজনকে আটক করা হয়।
এরপর অপহরণকারী তিনজনকে রংপুর পুলিশ সুপার আব্দুর রাজ্জাকের কার্যালযে হাজির করা হলে সেখানে অপহরণকারী মুকুল বেগ জানান, তারা শিশুটিকে অপহরণ করার সময় ঐ বাড়ির গৃহপরিচারিকা তাদের দেখে ফেলায় তাকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়।
রংপুর কোতয়ালী থানার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর কাদের জিলানী বলেন, মোবাইল ট্রাকিংয়ের মাধ্যমে অপরাধীদের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে ঐ এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এসময় অপহরণকারীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে শিশুটিকে নিয়ে পালিয়ে যাবার চেষ্টা করলে এলাকাবাসীর সহায়তায় তাদের তিনজনকে আটক করে অপহৃত শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।
উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার সকালে নীলফামারীর থানা পাড়ার ভাড়া বাসায় গৃহকর্মী সুমি বেগম (১৫) ও ১৫ মাসের পালিত শিশু পুত্র জুনায়েদ বাড়িতে রেখে কর্মস্থলে যান বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা মীর্জা নুর মোহাম্মদ বেগের স্ত্রী শিরিন জাহান। বিকেলে কর্মস্থল থেকে বাড়িতে ফিরে বাথরুমের মধ্যে সুমি বেগমের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখলেও শিশু জুনায়েদকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। ঘটনার পরের দিন বুধবার রাতে জুনায়েদের আসল বাবা মীর্জা আকারিয়া বেগ বাদি হয়ে হত্যা ও অপহরণ মামলা করেন। হত্যাকান্ডের শিকার সুমি বেগম নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার খুটামারা ইউনিয়নের আরাজী বালাপাড়া গ্রামের আব্দুল্লাহর মেয়ে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ