• বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ০১:১৮ অপরাহ্ন |
শিরোনাম :
ইউনূস, হিলারি ও চেরি ব্লেয়ারের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার দাবি সংসদে মার্কেট-শপিং মলে মাস্ক বাধ্যতামূলক করে প্রজ্ঞাপন খানসামায় র‌্যাবের অভিযান ইয়াবাসহ দুই মাদককারবারী গ্রেপ্তার ডোমার ও ডিমলায় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ ১০ উদ্যোগ নিয়ে কর্মশালা নীলফামারীতে ৫ সহযোগীসহ কুখ্যাত চোর ফজল গ্রেপ্তার সৈয়দপুরে তথ্যসংগ্রহকারী ও সুপারভাইজারদের দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত জয়পুরহাট বিনা খরচে আইনের সেবা পেতে সেমিনার শিক্ষক লাঞ্চনা ও হেনস্তার বিরুদ্ধে সৈয়দপুরে উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর প্রতিবাদ সমাবেশ সৈয়দপুরে শহীদ আমিনুল হকের স্মরণসভা অনুষ্ঠিত ফুলবাড়ীতে বিনামূ‌ল্যে বীজ ও সার বিতরণ

দিনাজপুরে খোদ হোটেল মালিক থেতলে দিয়েছে শ্রমিকের মাথা

Hotel Sromik Picদিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরে খোদ হোটেল মালিকের ইটের আঘাতে থেতলে  গেছে তার হোটেলের শ্রমিক রঞ্জন কুমার পাল (৩৬) এর মাথা। সোমবার বিকেলে শহরের ঐতিহ্যবাহী মিষ্টির দোকান পাবনা সুইট মিটে এ ঘটনা ঘঠে। গুরুতর আহত অবস্থায় ওই শ্রমিককে দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহত শ্রমিক রঞ্জন কুমার পাল গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার খোচাশহর গ্রামের সচিন কুমার পালের ছেলে। দীর্ঘ প্রায় ১৫ বছর ধরে সে পাবনা সুইট মিটের দই তৈরীর কারিগর হিসেবে কাজ করে আসছে।
দীর্ঘ দিনের পুরাতন কারিগরকে আহত করার ঘটনায় শ্রমিকদের মধ্যে বিরাজ করছে চরম উত্তেজনা।  শ্রমিকরা বাহাদুর বাজার টিএনটি রোর্ডে পাবনা সুইট মিটের আশপাশে জোটলা পাকাচ্ছে। যে কোন সময় ঘটতে পারে বড় ধরণের হামলার ঘটনা। এদিকে প্রশাসন যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করেছে।
আহত রঞ্জন কুমার পাল ও অন্যান্য শ্রমিকরা জানান, প্রায় ১৫ বছর যাবত পাবনা সুইট মিটে দইয়ের কারিগর হিসাবে কাজ করে আসছেন রঞ্জন কুমার পাল। বাজারে জিনিসপত্রের দাম বেড়ে যাওয়ায় সম্প্রতি তিনি পাবনা সুইট মিটের মালিক শ্যামল কুমার ঘোষকে বেতন বাড়ানোসহ বিভিন্ন সমস্যার কথা জানান। সেই থেকে তার উপর নির্যাতন নেমে আসে। ছুটি নিয়ে বাড়ী যেতে চাইলে তাকে বাড়ীতে যেতে দেয়া হয় না। গত ৬/৭ দিন আগে মালিকের চেম্বারে গেলে মালিক তাকে তার চেম্বারে আর কোন দিন ঢুকতে নিষেধ করেন। সেই দিন থেকে সে আর মালিকের চেম্বারে যায়নি।
গত রোববার দুপুরে মালিক শ্যামল কুমার ঘোষ কারিগর রঞ্জন কুমার পালকে তার চেম্বারে ডেকে পাঠান। কিন্তু ইতিপূর্বে তাকে চেম্বারে প্রবেশ করতে নিষেধ করায় সে মালিকের চেম্বারে যায়নি। এ জন্য তাকে ওইদিন দুপুরে মিরপিট করে মালিক। সোমবার মালিক শ্যামল কুমার ঘোষ তাকে আবারো চেম্বারে ডেকে পাঠায়। কিন্তু তার আসতে দেরি হওয়ায় মালিক শ্যামল কুমার ঘোষ ক্ষেপে গিয়ে কারখানায় উপস্থিত হয়ে লাঠি দিয়ে এলোপাথারী ভাবে মারধর করে। এক পর্যায় কারখানায় থাকা ইটের টুকরা দিয়ে কারিগর রঞ্জন কুমার পালের মাথায় আঘাত করলে তার মাথা থেতলে যায়। পরে অন্যান্য শ্রমিকরা এগিয়ে এসে মালিকের কাছ থেকে তাকে উদ্ধার করে আহত অবস্থায় দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।
এ খবর দিনাজপুর শহরের বিভিন্ন হোটেলে শ্রমিকদের মাঝে জানা জানি হয়ে গেলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। শ্রমিকরা পাবনা সইটের সামনে জড়ো হয়। দিনাজপুর হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষে পাবনা সুইট মিটের সামনে শ্রমিক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধনের ডাক দিয়ে মাইকিংও করা হয়।
মালিক হোটেলে হামলা হওয়ার আশংকায় দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় সংবাদ দেয়। থানা কর্তৃপক্ষ  সেখানে পুলিশ মোতায়েন করে। শ্রমিক নেতারা গোলযোগ এড়াতে মানববন্ধন কর্মসুচি স্থগিত করে। পুনরায় তারা নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করবে বলে জানান।
উল্লেখ্য, শ্যামল কুমার ঘোষ দিনাজপুর হোটেল রেস্তোরা মালিক সমিতির সভাপতি ও দিনাজপুর চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির নির্বাহী সদস্য।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ