• মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৪২ অপরাহ্ন |

নাজমাকে প্রায় দেড় বছর পর ফেরত দিয়েছে বিএসএফ

damurhuda-ferot-picture-31-08-14চুয়াডাঙ্গা : চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা জয়নগর চেকপোষ্ট সীমান্তে দু’দেশের পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে নাজমা আক্তার (২১) নামে এক বাংলাদেশী যুবতীকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ। ফেরতকৃত নাজমা আক্তার চট্রগ্রাম জেলার চন্দনাইশ উপজেলার ধুপছড়ি গ্রামের মৃত মোফাজ্জেল আহম্মেদের মেয়ে। রোববার দুপুর দেড়টায় পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বিএসএফ বিজিবির কাছে তাকে ফেরত দেয়।

বিজিবি জানায়, রোববার দুপুরে উপজেলার দর্শনা জয়নগর চেকপোষ্ট সীমান্তের ৭৬ নম্বর মেইন পিলারের কাছে দু’দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বিএসএফ-বিজিবির কাছে নাজমা আক্তারকে ফেরত দেয়। এতে উপস্থিত ছিলেন, দর্শনা বিজিবি ক্যাম্পের কমান্ডার সুবেদার মহসিন আলী, চেকপোষ্ট ইমিগ্রেশন ইনচার্জ এস কে মাহাবুব। ভারতের পক্ষে গেদে বিএসএফ ক্যাম্পের কোম্পানী কামান্ডার ইন্সপেকটর ডি, আর থাপা, এস আই রবি চৌহান সহ প্রমুখ। দামুড়হুদা থানার ওসি শিকদার মশিউর রহমান জানান, নাজমা আক্তারকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ১৯ মার্চ ২০১৩ তারিখে উখিয়া উপজেলার টেকনাফ গ্রামের ইসলাম আলী ও তার স্ত্রী খালেদা বেগম পার্শ্ববর্তী উপজেলার ধুপছড়ি গ্রামের নাজমা আক্তারকে ফুসলিয়ে চাকরী দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বেনাপল সীমান্ত দিয়ে তাকে পাচার করে ভারতের নয়াদিল্লীতে নিয়ে যায়।

ঘটনার পনের দিন পর পতিতালয়ের ৭০ হাজার টাকায় বিক্রি করার সময় পুলিশ নাজমা আক্তার কে উদ্ধার করে। এ সময় পাচারকারীরা পালিয়ে যায়। এরপর থেকে তাকে ভারতের নয়াদিল্লী সেফ হোমে তাকে রাখা হয়। দীর্ঘ দেড় বছর পর নাজমা আক্তারের পরিবারের সদস্যরা খবর পেয়ে বাংলাদেশ হাইকমিশনকে বিষয়টি জানালে ভারতীয় হাইকমিশনকে অবহিত করান। পরে দু’দেশের মধ্যে আলোচনা শেষে আজ রোববার বিজিবি-বিএসএফ পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে তাকে ফেরত দেয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ