• মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৭:২৩ অপরাহ্ন |

চাঁদপুর হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আবারও স্থগিত

ECশরীফুল ইসলাম, চাঁদপুর : হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আবারো স্থগিত করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশন ৩ সেপ্টেম্বর নির্বাচন স্থগিত সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে। সে আলোকে এ নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ নূরুল্লাহ নূরী সংশ্লিষ্টদের চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেন। রিটার্নিং অফিসার এবং জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আতাউর রহমানের সাথে যোগাযোগ করে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। আগামী ৭ সেপ্টেম্বর এ নির্বাচনের ভোটগ্রহণের দিন ধার্য ছিলো।
উচ্চ আদালতের নির্দেশে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠেয় হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত হওয়ার পর বিষয়টি আদালতের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর হয়ে যায়। দীর্ঘ পাঁচ মাস আইনী প্রক্রিয়া শেষে এবং নির্বাচন স্থগিত সংক্রান্ত রীট নিষ্পত্তি হওয়ার পর গত ৭ আগস্ট নির্বাচন কমিশন হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দিনক্ষণ ঠিক করে প্রজ্ঞাপন জারি করে। ৭ সেপ্টেম্বর রোববার ভোটগ্রহণের দিন নির্ধারণ করা হয়। নির্বাচন কমিশনের এ তারিখ ঘোষণার পর হাইমচরে একদিকে নির্বাচনী হাওয়া বইতে শুরু করে। অন্য দিকে অনেকে বর্তমান বর্ষা মৌসুমে নির্বাচন করা যৌক্তিক সময় নয় বলে বিরূপ প্রতিক্রিয়া জানান। এরই মধ্যে গত ১০ আগস্ট হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৩ চেয়ারম্যান ও ২ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী এ সময়ে নির্বাচন করার উপযোগী সময় নয় বলে নির্বাচন কমিশনে আবেদন করেন। তারা আবেদনে উল্লেখ করেন, বর্তমান বর্ষা মৌসুমে হাইমচরের অনেক ভোট কেন্দ্র এবং জনপদ বর্ষার পানিতে নিমজ্জিত। এমতাবস্থায় অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। তাই এ নির্বাচন আরো এক মাস পিছিয়ে দেয়ার দাবি জানান তারা। এদিকে ইতিমধ্যে বন্যা পরিস্থিতি দেখা দেয়। বর্ষার পানি আরো বেড়ে যায়। এ অবস্থায় নির্বাচন পেছানোর দাবিতে ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গত মঙ্গলবার মানববন্ধন করে বন্যা কবলিত হাইমচরবাসী। এদিকে নির্বাচন কমিশনের পরামর্শে জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্টরা বাস্তব অবস্থা দেখার জন্য মঙ্গলবার হাইমচর যান। পরদিন গতকাল বুধবার নির্বাচন কমিশন তাঁদের রিপোর্টের আলোকে নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেন। অবশেষে নির্বাচন কমিশনের এ সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে হাইমচরবাসী।হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত
চাঁদপুর কণ্ঠ রিপোর্ট
হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আবারো স্থগিত করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশন গতকাল ৩ সেপ্টেম্বর নির্বাচন স্থগিত সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে। সে আলোকে এ নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ নূরুল্লাহ নূরী সংশ্লিষ্টদের চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেন। রিটার্নিং অফিসার এবং জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আতাউর রহমানের সাথে যোগাযোগ করে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। আগামী ৭ সেপ্টেম্বর এ নির্বাচনের ভোটগ্রহণের দিন ধার্য ছিলো।
উচ্চ আদালতের নির্দেশে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠেয় হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত হওয়ার পর বিষয়টি আদালতের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর হয়ে যায়। দীর্ঘ পাঁচ মাস আইনী প্রক্রিয়া শেষে এবং নির্বাচন স্থগিত সংক্রান্ত রীট নিষ্পত্তি হওয়ার পর গত ৭ আগস্ট নির্বাচন কমিশন হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দিনক্ষণ ঠিক করে প্রজ্ঞাপন জারি করে। ৭ সেপ্টেম্বর রোববার ভোটগ্রহণের দিন নির্ধারণ করা হয়। নির্বাচন কমিশনের এ তারিখ ঘোষণার পর হাইমচরে একদিকে নির্বাচনী হাওয়া বইতে শুরু করে। অন্য দিকে অনেকে বর্তমান বর্ষা মৌসুমে নির্বাচন করা যৌক্তিক সময় নয় বলে বিরূপ প্রতিক্রিয়া জানান। এরই মধ্যে গত ১০ আগস্ট হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৩ চেয়ারম্যান ও ২ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী এ সময়ে নির্বাচন করার উপযোগী সময় নয় বলে নির্বাচন কমিশনে আবেদন করেন। তারা আবেদনে উল্লেখ করেন, বর্তমান বর্ষা মৌসুমে হাইমচরের অনেক ভোট কেন্দ্র এবং জনপদ বর্ষার পানিতে নিমজ্জিত। এমতাবস্থায় অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। তাই এ নির্বাচন আরো এক মাস পিছিয়ে দেয়ার দাবি জানান তারা। এদিকে ইতিমধ্যে বন্যা পরিস্থিতি দেখা দেয়। বর্ষার পানি আরো বেড়ে যায়। এ অবস্থায় নির্বাচন পেছানোর দাবিতে ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গত মঙ্গলবার মানববন্ধন করে বন্যা কবলিত হাইমচরবাসী। এদিকে নির্বাচন কমিশনের পরামর্শে জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্টরা বাস্তব অবস্থা দেখার জন্য মঙ্গলবার হাইমচর যান। পরদিন গতকাল বুধবার নির্বাচন কমিশন তাঁদের রিপোটের আলোকে নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেন। অবশেষে নির্বাচন কমিশনের এ সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে হাইমচরবাসী।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ