• শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৪:৫৯ পূর্বাহ্ন |

চেয়ারম্যানের নির্দেশ: বদরগঞ্জে কৃষকের রোপা আমন ধানের চারা উৎপাটন

Badarganj Photo 2বদরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি: রংপুরের বদরগঞ্জে মধুপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আয়নাল হক ও তার মামা ইলিয়াছ আলীর নির্দেশে তাদের ভাড়াটিয়া লোকজন এক কৃষকের প্রায় দেড়বিঘা জমির রোপা আমন ধানের চারা তুলে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে আহত হয়েছে ১জন। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার উপজেলার মধুপুর ইউনিয়নের নাওপাড়া গ্রামে। এনিয়ে বদরগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে।
জানা গেছে, নাওপাড়া গ্রামের কৃষক মোজাম্মেল ও তার বড়ভাই মোস্তফা তাদের পৈতৃক প্রায় দেড় বিঘা জমি দীর্ঘদিন থেকে চাষাবাদসহ ভোগদখল করে আসছে। এদিকে মধুপুর ইউপি চেয়ারম্যান আয়নাল হকের মামা ইলিয়াছ আলী ওই জমির অংশ দাবী করে আসছিল। এক পর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে চেয়ারম্যান ও তার মামা ইলিয়াছ আলীর নির্দেশে তাদের ভাড়াটিয়া লোকজনরা কৃষক মোজাম্মেল হকের চলতি রোপা আমন ধানের চারা উৎপাটন করে। এসময় ওই কৃষকসহ তার লোকজনরা চেয়ারম্যানের লোকজনদের বাঁধা দেয়। এতে চেয়ারম্যানের লোকজনরা ক্ষিপ্ত হয়ে নাজমুল হক নামে এক কৃষককে হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে। পরে এলাকাবাসীর তোপের মুখে চেয়ারম্যানের লোকজনরা সটকে পড়ে। এসময় কৃষক নাজমুলের অবস্থা আশংকাজনক হলে তাকে বদরগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। এঘটনায় বদরগঞ্জ থানায় কৃষক মোজাম্মেল হক বাদি হয়ে ৩৪জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন।
এলাকাবাসী এমদাদুল হক জানান, চেয়ারম্যান আয়নাল হক এর আগেও অনেকের জমি জমা জোর করে দখলের চেষ্টা করেছে। তার অত্যাচারে গ্রামের সাধারন লোকজন অতিষ্ঠ। তার ক্ষমতার জোরে কেউ তার প্রতিবাদ করার সাহস পায়না।
মধুপুর ইউপি চেয়ারম্যান আয়নাল হকের কাছে বিষয়টি জানতে চাওয়া হলে তিনি ঘটনার সত্যতা অস্বীকার করে বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। তবে ওই জমিটি আমার নানা ও মামার।
এ বিষয়ে বদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিনুল হক বলেন, এঘটনায় উভয় পক্ষের মামলা হয়েছে। তদন্ত-সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ