• বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ১১:০৪ অপরাহ্ন |

ভারতেও ঠাঁই হবে না লতিফ সিদ্দিকীর

94609_1সিসি ডেস্ক: মন্ত্রিত্ব ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর পদ থেকে বহিষ্কৃত আবদুল লতিফ সিদ্দিকী ভারতেও থাকতে পারছেন না। বাংলাদেশ সরকারের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে এ অবস্থা তৈরি হয়েছে। এ অবস্থায় তার স্বজনরা আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে আমেরিকা কিংবা কানাডায় যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

মন্ত্রিত্ব ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর পদ থেকে বহিষ্কৃত আবদুল লতিফ সিদ্দিকী ভারতেও থাকতে পারছেন না। বাংলাদেশ সরকারের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে এ অবস্থা তৈরি হয়েছে। এ অবস্থায় তার স্বজনরা আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে আমেরিকা কিংবা কানাডায় যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।ভারতেও ঠাঁই হবে না লতিফ সিদ্দিকীর

কয়েকজন মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা সমকালকে জানিয়েছেন, আবদুল লতিফ সিদ্দিকী দীর্ঘ সময় কলকাতায় থাকলে নানা সন্দেহ ও সমালোচনা সৃষ্টি হতে পারে। এ কারণে লতিফ সিদ্দিকীকে কলকাতা থেকে সরিয়ে দেওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে। ভারত সরকার এ অনুরোধে সাড়া দিলে শেষতক কলকাতায়ও থাকতে পারবেন না লতিফ সিদ্দিকী। দেশে ফেরা তো দূরের কথা, তাকে আগামী ৩৫ থেকে ৪০ দিনের মধ্যে কলকাতা ছেড়ে অন্য কোনো দেশে চলে যেতে হতে পারে।

বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ভারত সরকারকে অনুরোধ জানানোর বিষয়টি আবদুল লতিফ সিদ্দিকী নিজেও অবহিত হয়েছেন। এ কারণে এখন তিনি কলকাতায় আত্মগোপনে রয়েছেন। তিনি টেলিফোনে সমকালকে জানিয়েছেন, সরকার তাকে ভারত থেকে তাড়ানোর উদ্যোগ নেবে না বলেই তিনি মনে করছেন। ভারত ছাড়তে হলে তিনি ‘বিশ্ব নাগরিক’ হবেন। কোনো দেশেই রাজনৈতিক আশ্রয় চাইবেন না।

দেশে ফিরতে না পারলে কিংবা কলকাতায় অবস্থান করাটা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়লে তাকে আমেরিকা অথবা কানাডায় যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন স্বজনরা। তার বড় মেয়ে নন্দিনী সিদ্দিকী রিয়া আমেরিকার ডালাসে থাকেন। সেখানে আছেন তার স্ত্রী সাবেক এমপি লায়লা সিদ্দিকী ও ছোট মেয়ে পিতু সিদ্দিকী। কানাডায় আছেন এক শ্যালক।

গতকালও সমকালের সঙ্গে আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর টেলিফোনে কথা হয়েছে। তিনি বলেছেন, ‘আমার কোনো সমস্যা নেই। আমি ভালো আছি। খুব আনন্দে আছি। একদিন আলো আসবেই। ওসব নিয়ে ভাবছি না। নতুন জীবন শুরু হয়েছে। আমি তো এ জীবনই চেয়েছি। আমি এখন লেখালেখি করছি। মন্ত্রিত্ব ও আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর পদ আমার কাছে বড় কিছু নয়। উৎসঃ   সমকাল


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ