• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৬:২৩ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :
পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট খোলা বায়েজিদ আটক নীলফামারী জেলা শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলামের শ্বশুড়ের ইন্তেকাল সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের গ্রন্থাগারের মূল্যবান বইপত্র গোপনে বিক্রি ফেনসিডিলসহ সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা গ্রেপ্তার এ সেতু আমাদের অহংকার, আমাদের গর্ব: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারতে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে ৮ দিন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন বাংলাদেশের জন্য এক গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক দিন: প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যেতে মানতে হবে যেসব নির্দেশনা সৈয়দপুরে বিস্কুট দেয়ার প্রলোভনে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ গণমানুষের সমর্থনেই পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

‘লাশ ও ধর্ম নিয়ে রাজনীতি শুরু করেছে বিএনপি’

Hanifঢাকা : বিএনপি এখন রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে লাশ ও ধর্ম নিয়ে রাজনীতি শুরু করেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ।

শনিবার দুপুরে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে ‘আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ’ আয়োজিত বঙ্গবন্ধু পুত্র শেখ রাসেলের জম্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচন সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই মন্তব্য করেন।

হানিফ বলেন, বিএনপি-জামায়াত বুঝতে পেরেছে যে তাদের পায়ের তলায় মাটি নেই। এখন তারা রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে গেছে। তাই লাশ নিয়ে টানাটানি করেছেন। মানুষের জন্ম হলে মৃত্যু একদিন হবেই। বিএনপি ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক পিয়াস করিমের লাশ নিয়ে রাজনীতি শুরু করেছিলেন।

বিএনপির প্রতি প্রশ্ন রেখে হানিফ বলেন, আপনারা (বিএনপি) কী কারণে পিয়াস করিমের লাশ শহীদ মিনারে নেওয়ার দাবি জানালেন। শহীদ মিনার পরিষ্কার জায়গা। সাধারণ মানুষকে নিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর জায়গা এটা নয়। এটা জাতীয় ঐক্যের প্রতীক, তাকে অপবিত্রতা করা কী দরকার? তাছাড়া তিনি এমন কী ব্যক্তি যে তার লাশ শহীদ মিনারে নিতে হবে।

পিয়াস করিম ন্যায়ের কথা বলতেন- বিএনপি নেতাদের এমন দাবিকে নাকচ করে দিয়ে হানিফ বলেন, সরকারের বিপক্ষে কথা বলা মানেই ন্যায়ের কথা নয়। বিএনপি সরকারের সময় আওয়ামী লীগের হাজার হাজার নেতাকর্মীদের হত্যা করা হয়েছিল, তখন তারা কোথায় ছিলেন। তখন তো কোনো অন্যায়ের প্রতিবাদকারী সুশীল সমাজ ছিল না।

হানিফ বলেন, অধ্যাপক পিয়াস করিম ছিলেন কুমিল্লা শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান কুখ্যাত রাজাকার এডভোকেট আব্দুল করিমের ছেলে।

সম্প্রতি বিএনপির এক নেতা দাবি জানিয়েছেন লতিফ সিদ্দিকীকে ইন্টারপোলের মাধ্যমে দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের মুখোমুখি করতে হবে- এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, যে দলের প্রধান এক ওয়াক্ত নামাজ পর্যন্ত পড়েন না তারা এ দাবি করতে পারেন না। তাছাড়া কোনো অপরাধীকে যদি ইন্টারপোলের মাধ্যমে দেশে এনে বিচার করা হয়। তাহলে সর্ব প্রথম বিএনপি চেয়ারপারসনের দুর্নীতিবাজ দুই ছেলে তারেক রহমান ও কোকোকে ফিরিয়ে আনার দাবি জানান আপনারা। যদি দাবি জানান তাহলে আসুন বিদেশে পালিয়ে থাকা সকল অপরাধীকে ফিরিয়ে এনে বিচারের মুখোমুখি করি।

ইসলামী দলগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ইসলামের সেবক সব সময়ই আওয়ামী লীগ ছিল। এখনও আছে। বর্তমান সরকারও ইসলামের উন্নয়ন করবেন। এ নিয়ে হরতাল দেওয়ার কিছু নেই। তাই আপনারা স্বাধীনতা বিরোধীদের সঙ্গে মিলে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করবেন না।

তিনি বলেন, ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড ব্যক্তিগত বা রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড নয়। এ হত্যাকাণ্ড ছিল একাত্তরের পরাজিত শক্তিদের হত্যাকাণ্ড। এই হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে তারা মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত হওয়ার চরম প্রতিশোধ নিয়েছিল। সেদিন ঘাতকরা ১০বছরের ছোট ছেলে শেখ রাসেলকেও রক্ষা দেয়নি।

সংগঠনের সিনিয়র সহসভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন- স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পংকজ দেবনাথ, সহসভাপতি মতিউর রহমান মতি প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ