• মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ১১:৫২ পূর্বাহ্ন |

বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানীর কার্যক্রম বন্ধ

banglabandhaপঞ্চগড়: সারাদেশের মত তেঁতুলিয়াতেও বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০দলীয় জোটের লাগাতার হরতাল-অবরোধে থমকে গেছে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের আমদানী-রপ্তানীর সকল কার্যক্রম। গত ৫ জানুয়ারী থেকে শুরু লাগাতার এই অবরোধ এবং তার সাথে হরতালের কারণে উত্তরাঞ্চলের জনপদে নিম্ন আয়ের মানুষের জীবনে নেমে এসেছে চরম হতাশা। এই অঞ্চলে প্রায় ৮০ হাজার পাথর শ্রমিক পাথর উত্তোলনের সাথে জড়িত। তাতে কয়েক দিনের হরতাল-অবরোধের কারনে তাদের উত্তোলিত পাথর বিক্রি করতে না পেরে অর্ধাহারে দিনাতিপাত করতে হচ্ছে। এদিকে এ অঞ্চলের সবজি চাষীদের অবরোধের কারণে তাদের উৎপদিত সবজি দুরে কোথাও রপ্তানী করতে না পেরে নিকস্থ বাজারগুলোতে সস্তা পানির দরে বিক্রি করতে হচ্ছে। গতকাল বিকেলে বাজারগুলোতে সবজির মূল্য সস্তা হলেও ক্রেতাদের অভাবে চাষীদের চরম উদগ্নিভাব লক্ষ্য করা গেছে।

এদিকে বিরোধী দলের টানা এই কর্মসূচীর কারণে উপজেলার অফিস আদালতে কর্মকর্তা/কর্মচারীদের উপস্থিতি থাকলেও কাজের তেমন ভিড় লক্ষ্য করা যায়নি। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, সেটেলমেন্ট অফিস, সহকারী ভূমি অফিস, সাব-রেজিস্ট্রারের কার্যালয়, সোনালী ব্যাংক ও উপজেলা প্রশাসনসহ বেশ কয়েকটি অফিস ঘুরে দেখা গেছে সে চিত্র।
আজ সোনালী ব্যাংকে গিয়ে দেখা যায়, হরতালের কারণে ব্যাংকে টাকা না থাকায় বেশ অস্থিরতা লক্ষ্য করা গেছে ব্যাংকে টাকা তুলতে আসা গ্রাহকদের। তাদের সাথে আলাপকালে জানা গেছে, তারা কেউ এসেছেন মেয়ের বিয়ের জন্য টাকা উত্তোলন করতে, কেউ এনজিওর ঋণ শোধ করতে আবার কেউ জমানো টাকা উত্তোলন করে পরিবারের খাদ্য সংস্থান করতে। এ ব্যাপারে সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপক সবুক্তগীন শাকিলের সহিত আলাপকালে তিনি বলেন, টানা এই অবরোধ হরতালের কারণে ব্যাংকে টাকা আসছে না, গ্রাহকদের এই অসুবিধার করার জন্য উধ্বর্তনমহলকে জানিয়েছি।

এদিকে দেশের অন্যতম বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর অবরোধের ফলে ভারত থেকে কয়লা ও পাথর ভর্তি কয়েকটি মালবাহী ট্রাক এবং নেপাল থেকে মসুর ডাল মালবাহী কয়েকটি ট্রাক বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর ইয়ার্ডে এসে আটকা পড়ে আছে। লাগাতার অবরোধে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে রপ্তানীর জন্য দেশীয় পণ্যবাহী ট্রাক ইয়ার্ডে ঢুকেনি। এছাড়া মালামাল ভর্তি করে কোন পণ্যবাহী ট্রাক স্থলবন্দর থেকে ছেড়ে যায়নি। তবে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে দেশীয় কোন পণ্যবাহী ট্রাক প্রবেশ না হলেও ভারতের আসাম, রায়গঞ্জ ও রাণীগঞ্জ থেকে কয়লা ভর্তি বেশ কিছু ট্রাক স্থলবন্দর ইয়ার্ডে মাল খালাস করতে দেখা গেছে। তবে ভারতের অভ্যন্তরে ফুলবাড়ী সীমান্তে শ্রমিক সংগঠনের মধ্যে জটিলতা থাকায় গতকাল পাথর বোঝাই কোন ট্রাক বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে আসেনি।

বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর কুলিশ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি ইউসুফ আলী জানান- বিরোধী জোটের অবরোধে দেশের দক্ষিণাঞ্চল থেকে কোন মালবাহী ট্রাক স্থলবন্দরে না আসায় শ্রমিকরা কাজের অভাবে অলস সময় পার করছে। বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর পোর্ট ম্যানেজার কাজী আল তারিক জানান-বিরোধী দলের অবরোধে স্থলবন্দরে মালামাল আনলোডে কোন প্রভাব পড়েনি। তবে ইয়ার্ড থেকে পণ্যবাহী ট্রাক বাহিরে যেতে না পারায় সমস্যায় পড়তে হয়েছে।
এই বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে ২০১৩-১৪ অর্থ বছরে এ বন্দর থেকে প্রায় ২৩ কোটি টাকার রাজস্ব আয় হয়েছে। কিন্তু ২০১৫ সালের শুরুতেই রাজনৈতিক অস্থিরতা ও হরতালের কারণে সঠিক সময়ে মালামাল আমদানী-রপ্তানী না হওয়ায় সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ