• সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০১:৩২ অপরাহ্ন |

হিলিতে প্রধান শিক্ষকের অশ্লীলতার বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে ছাত্রীরা

Hiliদিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরের বাংলাহিলি সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা। প্রধান শিক্ষক মো. রেজাউল আলম উজ্জলকে অপসারনের দাবীতে শনিবার দুপুরে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা ক্লাস বর্জন করে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে। শিক্ষার্থীরা প্রধান শিক্ষকের আচরন সহ্য করতে না পেরে ক্লাস বর্জন করে তারা রাস্তায় নামেন।
শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, প্রধান শিক্ষক তাদের সাথে সব সময় কর্কষ ও অসদাচরন করেন। এছাড়াও ওই বিদ্যালয়ের উচ্চ শ্রেনীর এক ছাত্রীকে আপত্তিকর কথা বলেছে যা একজন আদর্শবান শিক্ষকের স্বাভাবিক আচরণের পরিপন্থি। তারা প্রধান শিক্ষকের অপসারন দাবী করে ক্লাস বর্জন করে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে। এদিকে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেনীর ১৬০ জন ছাত্রী প্রধান শিক্ষকের চারিত্রিক বিভিন্ন দিকগুলো তুলে ধরে দ্রুত শাস্তি ও তাকে কোন বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে বদলির জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বরাবর লিখিত অভিযোগসহ আবেদন করেছে।
বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও অভিভাবকদের লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, রেজাউল আলম উজ্জল প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব নিয়ে ২০১৩-২০১৪ ও ২০১৪-২০১৫ অর্থবছরের বিদ্যালয়ের উন্নয়নমুলক কাজের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাদ্দকৃত ১ লাখ ৮৬ হাজার ৪৯৪ টাকা ভুয়া ভাউচারমূলে তুলে আত্মসাৎ করেছেন। তিনি বিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের শিক্ষক মো. রেজাউল ইসলামের নামে ১৯ হাজার ৫২০ টাকা ভুয়া ভ্রমন বিল তুলে আত্মসাৎ করেছেন। রেজাউল ইসলাম নিরুপায় হয়ে উপজেলা হিসাবরক্ষন কর্মকর্তা মো. আব্দুস ছালাম মিঞাকে অবগত করেছেন। মাত্র ১৯ হাজার ৩০০ টাকা দিয়ে ফ্রিজ কিনে ৫০ হাজার টাকার ভুয়া ভাউচার প্রদান, এক টাকারও যন্ত্রপাতি না কিনে ল্যাবরোটরীর খরচ বাবদ ৫০ হাজার টাকা তুলেছেন।
বিদ্যালয়ে কর্মরত সহকারী শিক্ষকরা জানান, প্রধান শিক্ষক ঠিক মতো বিদ্যালয়ে আসেন না। বিদ্যলয়টির একমাত্র টিউবওয়েলটি নষ্ট হয়ে পড়ে আছে, ভবনগুলোতে রাতে বাতি জ্বলে না, ডিশের বিল বাকিসহ তিনি বিভিন্ন নামে-বেনামে বিদ্যালয়ের অর্থ আতœসাৎ করেছেন। এসব বিষয়ে কথা বললে শিক্ষকদেরকে অন্যত্র বদলির হুমকি ধমকি দেন ওই প্রধান শিক্ষক।
প্রথম সাময়িক, জেএসসি, মডেল টেষ্ট, দশম শ্রেনীর নির্বাচনী পরীক্ষা ও বার্ষিক পরীক্ষায় ভুলেভরা প্রশ্নপত্র দিয়ে পরীক্ষা নেন। অথচ ওই শিক্ষার্থীদের কাছে থেকে ২০০ টাকা হারে পরিক্ষার ফি আদায় করেছেন তিনি। ২০১৫ সালের এসএসসির ফরম পুরনে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছে থেকে ১ হাজার ৩৮৫ টাকার বিপরীতে ১ হাজার ৯৩৫ টাকা ও মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের কাছে থেকে ১ হাজার ২৪৫ টাকার বিপরিতে ১ হাজার ৮৮৫ টাকা নিয়েছেন তিনি। ভর্তি ফরম বাবদ ১০০ টাকা নির্ধারন করা থাকলেও নেয়া হয়েছে ১৫০ টাকা। মংগা ও দরিদ্র পীড়িত এলাকা হিলি’র সব পরীক্ষার যাবতীয় টাকা শিক্ষকদেরকে না দিয়ে আত্মসাৎ করেছেন ওই প্রধান শিক্ষক নিজেই।
পরীক্ষার মূল্যায়ন বাবদ টাকার কথা অন্যান্য শিক্ষকেরা উত্থাপন করলে তিনি শিক্ষকদের উপর চড়াও হয়ে অশ্লীল ভাষায় কথা বলেন। তার অফিস কক্ষে ইংরেজি শিক্ষক মোস্তফা কামালকে ডেকে গালে চড় মেরেছেন। মোস্তফা কামাল লজ্জায়-ঘৃনায় রংপুর অঞ্চল থেকে বদলি নিয়ে জয়পুরহাট জেলার সরকারী উচ্চ বালক বিদ্যালয়ে চলে গেছেন।
গত জুলাই মাসে প্রধান শিক্ষক হিসেবে আব্দুল ওয়াদুদ দায়িত্বে এলেও ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রেজাউল আলম ও তার বন্ধু সাবেক ডিডি রফিকুল ইসলামের যোগসাজসে ৭ দিনের মধ্যে অন্যত্র বদলি করিয়ে দিয়ে রেজাউল আলম আবারও বহাল তবিয়তে থেকে যান।
২০১২ সালে এই রেজাউল আলম বিরামপুর সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বে থাকাকালিন মিথ্যা অপবাদ দিয়ে শরীক চর্চা বিভাগের শিক্ষক মো. হাফিজুল ইসলামকে পঞ্চগড় দেবীগঞ্জ অলদিনী সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ে বদলি করান।
এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. রেজাউল আলমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এসব ষড়যন্ত্র। তবে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ও অভিভাবকদের অভিযোগের বিষয়গুলো নিয়ে প্রশ্ন তুললে তিনি সব কিছু এড়িয়ে যান।
হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.আজাহারুল ইসলাম জানান, ইতিপুর্বেও ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আন্দোলন ও মিছিল হয়েছে।  বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে।

পাঁচবিবিতে দেড় লক্ষাধিক টাকার ফেন্সিডিল আটক
হিলি প্রতিনিধি: জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার নওদা গ্রাম থেকে ভারতীয় অবৈধ ৪২২ বোতল ফেন্সিডিল আটক করা হয়েছে। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি), পাঁচবিবি বিষেশ ক্যাম্পের সদস্যরা অভিযান চালিয়ে ফেন্সিডিল গুলো আটক করে। আটককৃত  চোরাচালানী মালগুলোর আনুমানিক মুল্য প্রায় ১ লক্ষ ৬৮ হাজার টাকা। এব্যাপারে বিজিবির সদস্যরা কাউকে আটক করতে পারে নাই।
বিজিবি’র পাঁচবিবি বিষেশ ক্যাম্পের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নায়েব সুবেদার আব্দুল জব্বার জানান, আজ রবিবার রাত ১০.৩০ টার দিকে কয়েকজন চোরাকারবারী ফেন্সিডিল গুলো নিয়ে সীমান্ত অতিক্রম করে নওদা ছোট নদী এলাকায় এলেই ক্যাম্পের টহল দলের কমান্ডার নিজে সহ সঙ্গীয় সদস্যদের সহায়তায় উক্ত ফেন্সিডিল গুলো আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে আসে।  পরে ফেন্সিডিল গুলো ধবংসের জন্য জয়পুরহাট ব্যাটালিয়নে জমা দেওয়া হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ