• রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ০৮:৩৯ পূর্বাহ্ন |

মুন্সিগঞ্জের সাবেক এসপি’র বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

image_114442_0.pngসিসি ডেস্ক: নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় মুন্সিগঞ্জের সাবেক পুলিশ সুপার মো: হাবিবুর রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।
এসপি হাবিবের স্ত্রী হালিমা আক্তারের দায়েরকৃত একটি মামলার প্রেক্ষিতে নারাজির আবেদন আমলে নিয়ে সোমবার বিকেলে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক মো: বজলুর রহমান এ আদেশ দিয়েছেন।
গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত অন্যরা হলেন- হাবিবের ভাই আবু হানিফ, পিতা ইব্রাহিম হাওলাদার, বোন আমেনা বেগম, ভগ্নিপতি আমিনুল ইসলাম লিটন মোল্লা ও জহিরুল ইসলাম।

মামলার বিবরণীতে এসপি হাবিবের স্ত্রী উল্লেখ করেন, দীর্ঘদিন ধরে এসপি হাবিব বিভিন্ন সময়ে যৌতুকের জন্য তাকে শারীরিক নির্যাতন করে আসছিলেন। তাছাড়া মুন্সিগঞ্জ থেকে সাময়িক বরখাস্তের পর এসপি পদে পুনর্বহাল হতে উচ্চ মহলে তদবিরের জন্য ৩০ লাখ টাকা চেয়ে তাকে ও তার পিতা মোঃ শামসুল হককে চাপ দিতে থাকেন হাবিব।
যৌতুকের টাকা দিতে অসমর্থ হওয়ায় গত ১১ জুলাই শ্বশুর বাড়িতে হালিমাকে মারধর করেন হাবিব ও তার ভাই আবু হানিফসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন।
এ অভিযোগে গত বছরের ২৩ সেপ্টেম্বর সকালে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে উপস্থিত হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলাটি দায়ের করেন তিনি।
মামলাটি আমলে নিয়ে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল সিনিয়র বিচারিক হাকিম মো: নোমান মাইনুদ্দিনকে বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেন। তদন্ত শেষে ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়নি মর্মে প্রতিবেদন দেয়া হলে মামলার বাদী হালিমা আক্তার নারাজি আবেদন করেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মুন্সীগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার থাকাকালীন এসপি হাবিবের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতি ও পেশাগত অসদাচরণের ২২টি অভিযোগ এনে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগে একটি গোপনীয় প্রতিবেদন দাখিল করেন মুন্সীগঞ্জের তৎকালীন জেলা প্রশাসক সাইফুল হাসান বাদল। এসব অভিযোগের তদন্তে প্রাথমিক সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় চলতি বছর এপ্রিল মাসে মুন্সিগঞ্জ থেকে প্রত্যাহার করে এসপি হাবিবের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দায়ের করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
একই সঙ্গে সরকারি কর্মচারী (শৃংখলা ও আপিল) বিধিমালা অনুযায়ী কেন তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত ও উপযুক্ত গুরুদণ্ড দেয়া হবে না- এ বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাবেক জ্যেষ্ঠ সচিব সি.কিউ.কে. মুসতাক আহমদের স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগনামা পুলিশের মহাপরিদর্শকের কার্যালয়ে পাঠানো হয়। এসময় বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় এসপি হাবিবের নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়ে একাধিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

নতুন বার্তা


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ