• শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৫:৪১ অপরাহ্ন |

চেরাডাঙ্গী মেলায় অশ্লীলতা চলতে দেয়া হবে না -সদর উপজেলা চেয়ারম্যান

SAM_7436 copyমাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর : চেরাডাঙ্গী মেলায় কোন অবস্থাতেই অশ্লীলতা চলতে দেয়া হবে না। মেলায় যাত্রা ও নগ্ননৃত্যু বন্ধে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হলে অশ্লীলতা বন্ধ করতে পারবো। কারণ আপনারা পারেন তার প্রমান সদর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান আউলিয়াপুর ইউনিয়নের এবং বর্তমান চেয়ারম্যানও আউলিয়াপুর ইউনয়নের লোক। তাই সবাইকে মিলে এক সাথে কাজ করতে হবে। অশ্লীলতা বন্ধে আমরা জিরো টলারেন্স পন্থা অবলম্বন করবো।
দিনাজপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. ফরিদুল ইসলাম শুক্রবার বিকেলে স্থানীয় ঈদগাহ মাঠে আসন্ন বাংলাদেশ চেরাডাঙ্গী মেলার যাত্রা, সার্কাস ও পুতুল নাচের নামে অশ্লীলতা প্রতিরোধে ৬নং আউলিয়াপুর ইউনিয়নের সচেতন নাগরিকদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এক বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। সদর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান এ্যাড. মো. মোফাজ্জল হোসেন দুলাল’র সভাপতিত্বে জনসভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আউলিয়াপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. আলমগীর হোসেন, কোতয়ালী থানার সেকেন্ড অফিসার মো. আব্দুস সালাম, চেরাডাঙ্গী মেলার প্রেসিডেন্ট মো. ফজলুর রশিদ ফজলু, মেলার সাবেক প্রেসিডেন্ট মো. মোস্তফা কামাল, আউলিয়াপুর ইউনিয়ন অশ্লীলতা প্রতিরোধ কমিটির আহবায়ক মো. আফজাল হোসেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. জহির শাহ, কেবিএম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আলহাজ্ব মো. আইয়ূব আলী, চেরাডাঙ্গী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মিজানুর রহমান, মহব্বতপুর দাখিল মাদরাসার সুপার মাও. মিজানুর রহমান, সংগীত কলেজের প্রভাষক মো. বদিউজ্জামান বাদল, সিকদারহাট জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাও. মো. মতিউর রহমান, চেরাডাঙ্গী উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক আলহাজ্ব শামস্দ্দুীন আহমেদ, এসপি অফিস মসজিদের খতিব মাও. শওকত আলী, চেরাডাঙ্গী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মো. শহিদুল ইসলাম, বিশিষ্ট শিক্ষক মো. তসলিম উদ্দীন, সিকদারহাট বালিকা উচ্চ বিদ্যালল পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. ময়েজ উদ্দীন, জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য এ্যাড. মো. জাকির হোসেন, মহিষকোঠা গ্রামের মো. শামসুদ্দীন প্রমূখ। সভা পরিচালনা করেন অশ্লীলতা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য মো. জাকারিয়া।
সভায় চেরাডাঙ্গী মেলার প্রেসিডেন্ট মো. ফজলুর রশিদ ফজলু বলেন, যাত্রা, সার্কাস ও পুতুল নাচের নামে যারা এই মেলায় অশ্লীলতা ও বেহায়াপনা প্রদর্শন করবে, এলাকাবাসি ও প্রশাসনকে সাথে নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে। আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মকে ধ্বংসের মূখে ঠেলে দিতে চাই না। তাদের রক্ষা করার দায়িত্ব আপনার আমার সকলের। তিনি বলেন, লিখিত অনুমতি ছাড়া মেলায় কেউ কোন প্যান্ডেল তৈরী করলে আমরা তা ভেঙ্গে দিব। আমরা এবারে মেলায় কোন অবস্থাতেই কোন ধরনের অশ্লীলতা করতে দেবো না। অন্যান্য বক্তারা বলেন, মানুষ কোন দিন খারাপের সাথে থাকতে চায় না। আমাদের সমাজে ভালো মানুষের সংখ্যা বেশী ও খারাপ মানুষের সংখ্যা কম। সুতরাং কম সংখ্যক মানুষ বেশী মানুষের কোন ক্ষতি করতে পারে না। তার জন্য প্রয়োজন সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়া। বক্তারা আরো বলেন, অশ্লীলতা, জুয়া-হাউজি ও মাদকের ছোবল থেকে আমাদের যুব সমাজকে রক্ষা করতে হবে। দেশের ৭০ ভাগ যুবক জাতির শ্রেষ্ঠ সম্পদ। জাতির এই শ্রেষ্ঠ সম্পদকে রক্ষা করতে হলে অশ্লীলতা. বেহায়াপনা ও মাদকের মত ধ্বংসাত্বক কর্মকান্ড হতে তাদের বিরত রাখতে হবে। আমাদের এলাকা ও ভবিস্যত প্রজন্মকে বাঁচাতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। কয়েকজন বক্তা বলেন, মেলায় যাত্রা থাকবে, কিন্ত এতে অশ্লীলতা ও বেহায়াপনা থাকবে না। কারণ যাত্রা আমাদের গ্রামীণ সংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। এর মাধ্যমে গ্রামীণ জনগোষ্ঠি বিনোদন উপভোগ করে। যারা মেলায় যাত্রার নামে অশ্লীলতা আমদানী করেন তাদের প্রতি অনুরোধ জানান, তারা যেন ভবিষ্যতে এই মেলায় যাত্রার নামে কোন ধরণের অশ্লীলতা আমদানী না করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ