• মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০২:০৬ অপরাহ্ন |

কিশোরগঞ্জের চাঁদখানা বাবুপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের অনিয়ম

Oniকিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জ উপজেলার দ: চাঁদখানা বাবুপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ক্লাস ফাঁকি দেয়ার অভিযোগ মিলেছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ স্কুলের প্রধান শিক্ষক মাহফুজার রহমান প্রতিদিন স্কুলে ১০টার পরে আসে এবং কোন ক্লাশ ঠিক মতো নিজে না করে সহকারী শিক্ষকদের উপর চাপ প্রয়োগ করে ক্লাশ করে আসছেন। তিনি বেশীর ভাগ সময় স্কুলের নিয়ম বহির্ভূত ভাবে পরিচালনা করে থাকেন। স্কুলের নিয়ম অনুযায়ী সকাল সাড়ে ৯টায় শিক্ষকদের উপস্থিত হওয়ার কথা থাকলেও মাহফুজার রহমান স্কুলে যায় ১০টার পরে। হঠাৎ কয়েকটি পত্রিকার সাংবাদিক মাগুড়া ইউনিয়নের সিঙ্গেরগাড়ী পোদ্দারপাড়ায় একটি অনুসন্ধানী সংবাদ সংগ্রহের জন্য গেলে এলাকাবাসী স্কুলের ক্লাশ অনিয়মের ব্যাপারে সাংবাদিকদের জানান। সাংবাদিকরা তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে সেই স্কুলে গেলে ঘটনার সত্যতা মিলে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কিশোরগঞ্জ উপজেলার দ: চাঁদখানা ইউনিয়নের বাবুপাড়া (নতুন সরকারী) প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের স্বেচ্ছাচারিতা ও ক্লাশ ফাঁকি দেয়ার ব্যাপারে যে অভিযোগ উঠেছে তার সত্যতা স্কুলে উপস্থিত হয়ে সাংবাদিকরা পেয়েছে। স্কুলটি উপজেলার একেবারে শেষ সীমানায় ও প্রত্যস্ত অঞ্চলে হওয়াতে এবং উপজেলা শিক্ষা অফিসার আনোয়ারুল ইসলামের বদলী হওয়ায় উপজেলা শিক্ষা অফিসারগণ কাজের প্রতি অমনোযোগী হয়েছে। ফলে স্কুলের শিক্ষকেরা স্কুল ফাঁকি দিতে দ্বিধাবোধ করছে না। স্কুলে গিয়ে দেখা গেছে, সাড়ে ১২টার সময় ৩য়, ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা স্কুলের পাশে নদীতে এবং স্কুলের চারদিকে ময়লা আবর্জনার মধ্যে মার্বেল,ও ধুলো ছিটিয়ে নানান ধরনের খেলায় ব্যস্ত। যে সময়ে স্কুলে ক্লাশ চলার কথা সে সময়ে স্কুলের শিক্ষার্থীরা খেলা করছে। স্কুলের অফিসে গিয়ে দেখা গেছে,৩জন শিক্ষিকা ক্লাশ ফাঁকি দিয়ে নিজেদের ব্যক্তিগত আলাপ নিয়ে অফিস রুমে সময় কাটাচ্ছেন। স্কুলের শিক্ষার্থীরা সাংবাদিকদের ছবি তোলা দেখে স্কুল শিক্ষিকাদেরকে জানালে তারা অফিস থেকে বের হয়ে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন। সহকারী শিক্ষিকা কাঞ্চন রানীকে ক্লাশ রুটিনের ব্যাপারে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানান,ক্লাশ রুটিন আছে। সাংবাদিকরা দেখতে চাইলে তিনি ক্লাশ রুটিন অনেক খোঁজা খুঁজি করার পর বলেন কোথায় যে আছে জানি না। ক্লাশ ঠিক মতো হয় কিনা জানতে চাইলে-সহকারী শিক্ষিকা তাপসী রানী জানান ঠিক মতো ক্লাশ হয়। প্রথম শিফট ক্লাশ কখন শুরু হয় এবং কখন ছুটি হয়। তিনি জানান,প্রথম শিফট ক্লাশ শুরু হয় সকাল সাড়ে ৯টায় ছুটি হয় ১২টায়। আজ প্রথম শিফটের কখন ছুটি হয়েছে তখন তিনি জানান,প্রধান শিক্ষক আজ সোয়া ১১টায় ছুটি দিয়েছে। প্রধান শিক্ষক কোথায় গেছেন-জিজ্ঞেস করা হলে সহকারী শিক্ষিকারা জানান স্যার উপজেলায় গেছেন।
এ ব্যাপারে মাহফুজার রহমানের বিষয়ে চাঁদখানা ইউনিয়নের দায়িত্বে থাকা  “উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার নূর মোহম্মদের সাথে কথা হলে তিনি জানান,তিনি স্কুল থেকে উপজেলা এসেছেন একথা আপনার কাছ থেকে জানলাম”। প্রধান শিক্ষক মাহফুজার রহমানের সাথে হলে তিনি জানান আমি উপজেলা প্রকৌশলী অফিসারের কাছে স্কুলের দ্বিতল ভবনের কাজের জন্য এসেছি। আপনি স্কুল ঠিক মতো করেন না অভিযোগের কথা বললে তিনি জানান, আমি স্কুল ঠিকমতো  করি কিনা তা শিক্ষা অফিসারেরা ভাল ভাবে জানেন। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সিদ্দিকুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি জানান,আমি ভারত থেকে এসে শিক্ষক সমিতির সদস্যদের স্কুল পরিচালনার বিষয়ে আলোচনা করেছি এবং আজ আবার এ বিষয়ে তাদেরকে জানার পর ব্যবস্থা গ্রহন করবো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ