• মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০২:০২ অপরাহ্ন |

কংক্রিট স্তূপের নিচ থেকে শিশুকে অবিশ্বাস্য উদ্ধার

Siria-1423040438সিসি ডেস্ক : ‘রাখে আল্লাহ মারে কে’- এ কথা আমরা অনেকের কাছ থেকে শুনে থাকি। বহুতল ভবন কিংবা বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকেও রহস্যজনকভাবে অনেক শিশু বেঁচে যাওয়ার রেকর্ড রয়েছে।

এবার সিরিয়ার আলেপ্পো শহরের বিমান হামলার একটি বাড়ির এক মিটার (প্রায় সাড়ে তিন ফুট) ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকা পড়া এক শিশু রহস্যজনকভাবে বেঁচে গেছে। তবে তার বেঁচে যাওয়ার কৃতিত্বের ভাগীদার স্রষ্টার পাশাপাশি উদ্ধারকারীরাও। কয়েক ফুট কংক্রিটের স্তূপের নিচে থেকে প্রায় দুই বছরের ঘিনা বাসসাম নামের শিশুটিকে জীবিত উদ্ধার করে একটি স্বেচ্ছাসেবক দল।

লন্ডনভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন সিরিয়ান অবজারভেটরি ২৫ জানুয়ারি ইউটিউবে ভিডিওটি পোস্ট করে। এতে দেখা যায়, কয়েকজন মানুষ খালি হাতে কংক্রিটের স্তূপ ছড়িয়ে শিশুটিকে বের করে আনার চেষ্টা করছেন। কন্যাশিশুটির যাতে কোনো ক্ষতি না হয় সে জন্য উদ্ধার কার্যক্রমে তারা কোনো যন্ত্র ব্যবহার করেননি। শিশুটি শ্বাস-প্রশ্বাস নিচ্ছে- এমন বিষয়টি আঁচ করতে পেরে হাত দিয়ে খুঁড়ে খুঁড়ে শিশুটিকে উদ্ধার করার চেষ্টা করেন স্বেচ্ছাসেবকরা।

অবশেষে কংক্রিটের স্তূপ থেকে শিশুটিকে বের করে আনেন তারা। এ সময় তারা ‘আল্লাহু আকবর’ (আল্লাহ মহান) বলে উচ্চ স্বরে আওয়াজ করতে থাকেন। উপস্থিত জনগণও হর্ষধ্বনিতে ফেটে পড়েন। পুরো উদ্ধার অভিযানটি ছিল অবিশ্বাস্য ও রোমাঞ্চে ভরা। ওপরে তুলে আনার পর তার শ্বাস-প্রশ্বাসেও কোনো সমস্যা ছিল না।

কয়েক দিন আগে সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত আলেপ্পোতে বিমান হামলায় ওই শিশুর বাড়ি ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়। এতে দুই শিশুসহ ১০ জন নিহত হলেও শিশুটি কংক্রিটের ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকা পড়ে।

ঘিনার চাচা বলেন, বিমান হামলার পর তাকে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করা হয়। ধ্বংসস্তূপের মধ্য থেকে কান্নার শব্দ শুনতে পাওয়ার পরই উদ্ধার অভিযান শুরু করা হয়। ধন্যবাদ তাকে বাঁচাতে পেরে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ