• মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০২:১০ অপরাহ্ন |

অঘটনের জন্ম দেওয়াই আইরিশদের কাজ

Irland-1424071981খেলাধুলা ডেস্ক: বিশ্বকাপ এলেই জ্বলে ওঠে আয়ারল্যান্ড! আন্ডারডগ হিসেবে মাঠে নামলেও ফেভারিটদের মাটিতে নামিয়ে আনতে ওস্তাদ আইরিশরা।

সোমবার নিউজিল্যান্ডের নেলসনে দুই বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে দেয়নি আয়ারল্যান্ড। ব্যাটিং কিংবা বোলিং কোনো বিভাগেই আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আর চলতে না পারায় এবারের বিশ্বকাপে প্রথম অঘটনের শিকার ক্যারিবীয়রা।

৪ উইকেটে জয় পায় আয়ারল্যান্ড। ওয়েস্ট ইন্ডিজের দেওয়া ৩০৫ রানের টার্গেট টপকে যায় ৪৫.৫ ওভারেই। তবে এবারই প্রথম কোনো দলকে হারায়নি আয়ারল্যান্ড।

২০০৭ ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো অংশ নেয় আয়ারল্যান্ড। সেবার গ্রুপ পর্বের বাধা টপকে সুপার এইটে খেলে আইরিশরা। গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে দুর্বার জিম্বাবুয়ের সঙ্গে ম্যাচ ড্র করে আয়ারল্যান্ড। নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয়বঞ্চিত হলেও দ্বিতীয় ম্যাচে ক্রিকেট বিশ্বে নিজেদের আগমনের কথা জানিয়ে দেয় আইরিশরা। পাকিস্তানকে ২ উইকেটে হারিয়ে দেয় তারা। এরপর সুপার এইটে বাংলাদেশকেও নিজেদের সামনে দাঁড়াতে দেয়নি তারা। ৭৪ রানে জয় পায় ক্রিকেটের নতুন দেশটি।

এরপর ২০০৯ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আবারও বাংলাদেশকে হারায় আয়ারল্যান্ড। নটিংহ্যামে টাইগারদের হারায় ৬ উইকেটে।

এর দুই বছর পর ক্রিকেট বিশ্ব সবচেয়ে বড় অঘটনের দৃশ্যপট পায়। ২০১১ বিশ্বকাপে বেঙ্গালুরুতে ইংল্যান্ডকে ৩ উইকেটে হারায় আইরিশরা। ইংল্যান্ডের দেওয়া ৩২৮ রানের টার্গেট আয়ারল্যান্ড ছুঁয়ে নেয় ৫ বল আগেই। টেস্ট স্ট্যাটাস না পাওয়ায় আয়ারল্যান্ডের বেশির ভাগ খেলোয়াড়ই ইংলিশ কাউন্টিতে খেলে থাকেন।

বলাবাহুল্য, যাদের থেকে ক্রিকেটের হাতেখড়ি তাদেরকে হারিয়ে নিজেদের শক্তি ও সামর্থ্যের কথা ভালোভাবেই জানিয়ে দিল আয়ারল্যান্ড।

চার বছর পর নিজেদের তৃতীয় বিশ্বকাপের শুরুটাতেই অঘটন ঘটিয়ে দিল আয়ারল্যান্ড। আইসিসি সহযোগী দেশ হয়েও যা করে দেখাচ্ছে আয়ারল্যান্ড, তা সত্যিই বিস্ময়কর!

এবারের বিশ্বকাপের পরবর্তী ম্যাচগুলোতে স্টারলিং, জয়েসরা আরো কী করেন, তা দেখার বিষয় বৈকি!


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ