• শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ১২:৫৩ পূর্বাহ্ন |

হিলি সীমান্তের শূণ্য আঙিনায় মাতৃভাষা দিবস উদযাপন

21 Febআকতার হোসেন বকুল, হিলি:  হিলি সীমান্তের শূণ্য আঙিনায় হয়ে গেল অমর একুশে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। এ উপলক্ষে সীমান্তের ২৮৫নং মেইন পিলারের কাছে স্থাপন করা হয় অস্থায়ী শহীদ মিনার। সেখানে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। দুই বাংলার বাংলাভাষী মানুষের মধ্যে সৌহাদ্য ও সম্প্রীতির লক্ষ্যে স্থানীয় সাপ্তাহিক আলোকিত সীমান্ত ও আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কমান্ডের উদ্যোগে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এরফলে অমর একুশে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের অনুষ্ঠানটি পরিনত হয় দুই বাংলার মানুষদের মিলন মেলায়।
সকাল ১১টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলণের (অর্ধনমিত) মাধ্যমে দিবসটির সুচনা করা হয়। সাড়ে ১১টায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার লিয়াকত আলীর সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য দেন, সাপ্তাহিক আলোকিত সীমান্তে সম্পাদক ও আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কমান্ডের সভাপতি সাংবাদিক জাহিদুল ইসলাম। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন, হাকিমপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আকরাম হোসেন মন্ডল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আজাহারুল ইসলাম। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান লিটন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জামিল হোসেন চলন্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রতাপ মল্লিক, সাবেক উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শাহীনুর রেজা শাহীন, হিলি স্থলবন্দর ট্রাক মালিক গ্রুপের আহবায়ক হারুন উর রশিদ।
অনুষ্ঠানের আয়োজক সাপ্তাহিক আলোকিত সীমান্তের সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম বলেন, দুই বাংলার মানুষের ভাষা এক। সীমান্তের কাটাতারের বেড়া দিয়ে মানুষ আটকানো যাবে। কিন্তু ভারত-বাংলাদেশের বাঙালির ভাষা এবং হৃদয়কে আটকাতে পারবে না। যা বাংলা ভাষার টানে আজ দুই বাংলার মানুষেরা মিলে গিয়েছিল তাদের নিজস্ব কৃষ্টি ও সংস্কৃতির সৌহাদ্য, সম্প্রীতি, ও ভ্রাতৃত্বের মেলবন্ধণে। আমাদের মধ্যে এই প্রয়াস অব্যাহত থাকবে। শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করে স্থানীয় দুই বাংলার শিল্পীরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ