• শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ১১:১৭ অপরাহ্ন |

১৭ বছর আগে চুরি যাওয়া মেয়ে উদ্ধার

Celeste-Nurse-and-her-husband-Morneসিসি ডেস্ক: দক্ষিণ আফ্রিকার এক ঘুমন্ত মায়ের কোল থেকে চুরি গিয়েছিল তিন দিনের এক শিশু। দীর্ঘ ১৭ বছর পর সেই শিশুকে খুঁজে পেয়েছেন তার মা। শুক্রবার স্থানীয় পুলিশের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি।

এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দোহে ৫০ বছরের এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ এবং তার বিরুদ্ধে অপহরণের অভিযোগ আনা হয়েছে।

বিবিসি জানায়, চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে দক্ষিণ আফ্রিকার এক স্কুলে ভর্তি হয়েছিল চুরি যাওয়া মেয়ে জেফানি। ওই স্কুলে আগে থেকেই পড়ত তার নিজের বোন কাসিডি। প্রথম সাক্ষাতেই তাদের মধ্যে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। তবে বন্ধুত্বের চেয়ে দুজনের চেহারায় অপূর্ব মিল নিয়েই স্কুলে বেশি আলোচনা হত। তাকে এক নজর দেখার জন্য পাগল হয়ে ওঠেন মা সিলেস্তে  নার্স। বান্ধবী জেফানিকে একদিন নিজেদের বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায় তার বোন। মেয়েকে দেখেই চিনতে পারেন তার মা। তিনি মেয়েকে কফি খেতে দেন। জেফানি যখন কফি খাচ্ছিল তখনই পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন তার প্রকৃত বাবা-মা। পরে ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে এ বিষয়ে নিশ্চিত হন বাবা মর্নে এবং  সিলেস্তে নার্স।

এ সম্পর্কে তাদের অনুভূতি হচ্ছে,‘১৭ বছর পর মেয়েকে ফিরে পাওয়াকে স্বপ্নের মত লাগছে।’ তার মা সিলেস্তে স্থানীয় ‘ক্যাপ টক’ রেডিওকে বলেন,‘ প্রথম দেখাতেই বোন কাসিপির সঙ্গে জাফিনির একটি অবিশ্বাস্য আন্তরিকতা গড়ে ওঠেছিল। দুজনার এই সম্পর্কের কারণেই আমরা আমাদের হারানো মেয়েকে ওকে খুঁজে পেয়েছি।’

১৯৯৭ সালের এপ্রিল মাসে গ্রুতে স্কুর নামক হাসপাতাল থেকে সেলেস্তে এবং মর্নে নার্স দম্পতির প্রথম সন্তান জেফানিকে চুরি করেন তাদেরই এক আত্মীয়া। পরে তাদের আরো তিনটি সন্তাহ হয়। কিন্তু মেয়ে হারানোর শোক ভুলতে পারেননি  মা সিলেস্তে নার্স এবং বাবা মর্নে । প্রতি বছর ২৮ এপ্রিল তারা হারানো মেয়ের জন্মদিন পালন করতেন। আশা ছিল. একদিন না একদিন হারানো মেয়েকে তারা ঠিক খুঁজে বের করবেন।

এদিকে চুরি হওয়ার পর ভিন্ন নামে আরেক পরিবাবে বেড়ে ওঠতে থাকে জেফানি। কিন্তু সে যে তাদের সত্যিকারের মেয়ে নয় এটা কোনোদিনও বুঝতে পারেনি সে। চুরির ঘটনা প্রকাশিত হওয়ার পর জেফানির পঞ্চাশোর্ধ পালক বাবা-মাকে আটক করেছে পুলিশ। নি:স্বঙ্গ এই দম্পতিকে কারাগারে নেয়া হয়েছে। ঘটনার আকস্মিকতায় মানসিকভাবে ভেঙে পরেছে জেফানি। তাকে সুস্থ করে তুলতে নিরাময় কেন্দ্রে ভর্তি করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার সোসাল সার্ভিসেস বিভাগ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ