• রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০২:২২ পূর্বাহ্ন |

ঢাকা মেডিক্যালে অদ্ভুত বাচ্চার জন্ম

medicalk-1423154552সিসি ডেস্ক: ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে অদ্ভুত এক বাচ্চার জন্ম হয়েছে। বাচ্চাটির জন্মের পরপরই ওই ওয়ার্ডে থাকা রোগী ও তাদের স্বজনদের মধ্যে হইচই পড়ে যায়। ভয়ে ও আতঙ্কে অনেকেই আঁতকে ওঠেন। এমনকি ডাক্তাররাও ভয় পেয়ে যান। এ নিয়ে ব্যাপক আলোচনা চলছে।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের গাইনি বিভাগের ২১২ নম্বর ওয়ার্ডে এ বাচ্চার জন্ম হয়।

ঢামেক হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, বুধবার সকাল ১০টার দিকে কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালি উপজেলার মনিরুজ্জামান তার স্ত্রী রোমানা ইয়াসমীনকে হাসপাতালে ওয়ার্ডে ভর্তি করান। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাচ্চা প্রসব করেন রোমানা।

ওই ওয়ার্ডের এক আনসার সদস্য জানান, জন্মের পর বাচ্চাটিকে যখন গাইনি বিভাগে নেওয়া হয়, তখন হঠাৎ সবাই চিৎকার করে ওঠেন। অনেকই ভয়ে ওয়ার্ড থেকে বের হয়ে দৌঁড় দেন। পরে শিশুটিকে ইনকিউবিউটরে রাখা হয়।

আরেক আনসার সদস্য বাচ্চাটিকে দেখে আসার পর জানান, ‘বাচ্চাটির হাত-পা ঠিক আছে। একটি চোখ নেই। নাক আছে, তবে তা খুবই ছোট।কান আছে কিন্তু ছিদ্র নেই। বিশাল এক মুখ। হা করে আছে। মনে হচ্ছে গোগ্রাসে সবকিছু গিলে খাবে। বিকট এবং অদ্ভুত রকমের এক বাচ্চা। এমন বাচ্চা জীবনে দেখিনি।’

এ নিয়ে চিকিৎসা বিজ্ঞান কী বলে, তা জানতে চাইলে ঢামেকের গাইনি বিভাগের অধ্যাপক দিলারা পারভিন জানান, গর্ভাবস্থায় ভ্রুণ যখন তৈরি হয়, ঠিক ওই সময়ই এক ধরণের শুক্রানু ও ডিম্বানুর অসম বিন্যাসের ফলে বাচ্চার আকৃতিগত পরিবর্তন হয়। স্বাভাবিক শিশুতে পরিণত না হয়ে শিশুর মতোই অন্য এক বিকৃত শিশুতে পরিণত হয়। যারা কুসংস্কারে বিশ্বাস করে কেবলমাত্র তারাই বিভিন্ন রকম কথাবার্তা ছড়ায়। এ ক্ষেত্রে মায়ের কোনো দোষ নেই। এরপর যখন ওই মেয়ে বাচ্চা প্রসব করবে এরকম নাও হতে পারে। তবে করো ভয় পাওয়ার কিছু নেই।

বাচ্চাটির বিষয়ে তিনি আরো জানান, চোখ, নাক, কান নেই যে বাচ্চার এবং দেখতে যে অদ্ভুত রকমের তাকে বাঁচিয়ে রেখে কী লাভ। তারপরও বাচ্চার অভিভাবকের ইচ্ছায় কৃত্রিম শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। উৎস: রাইজিংবিডি


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ