• সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ১০:০০ অপরাহ্ন |

যারা খুন করে, তাদের সাথে কোন সংলাপ হতে পারে না- নূর

Nurসিসি নিউজ: বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসী কার্যকলাপকে ইঙ্গিত করে সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর এমপি বলেছেন, যারা খুন করে, মানুষ পুড়িয়ে মারে, সন্ত্রাসী করে- তাদের সাথে কোন সংলাপ হতে পারেনা। যারা মানুষের জন্য রাজনীতি করে তাদের সাথে সংলাপ হতে পারে। পৃথিবীর ইতিহাসে কোন দিন খুনি, সন্ত্রাসীদের সাথে কেউ সংলাপ বা আলোচনায় বসেননি। আমরাও বসবো না।
শুক্রবার দুপুরে নীলফামারীর শান্তি নগরে মৌন জেনারেল হাসপাতালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
বিএনপির নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে মন্ত্রী বলেন, বিশৃঙ্খলা-নৈরাজ্য করে পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ হত্যা করছে। যেসব মানুষকে হত্যা করছে তারা কোন রাজনৈতিক দল করেনা। তারা সাধারণ মানুষ। এসব সাধারণ মানুষকে হত্যা করে, জীবন্ত পুড়িয়ে মেরে আপনার কি লাভ হচ্ছে। তারা তো আপনার শক্র নয়। আপনার শক্র আমরা, যারা আওয়ামী লীগ করি। মারতে হয় আমাদের মারুণ। যত পারেন আমাদের পেট্রোল বোমা মারেন, গুলি করেন।
আপনার দলের নেতারা বলেন সংলাপে বসেন সব ঠিক হয়ে যাবে। তার মানে কি দাঁড়ায় দেশে যে সব সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ঘটছে তার সব কিছুই বিএনপির নেতাকর্মীরা ঘটাছে। আর আপনি বেগম খালেদা জিয়া সব অস্বীকার করে বলছেন এসব আওয়ামী লীগ ঘটাছে।
এসময় মন্ত্রী আরো বলেন, আমরা উন্নয়নের রাজনীতি করি, জনগণের জন্য রাজনীতি করি। আর বিএনপি যুদ্ধাপরাধী জামায়াতকে সাথে নিয়ে গণতন্ত্রের নামে, মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার নামে মানুষকে হত্যা করছে। জীবন্ত পুড়িয়ে মারছে।  বিএনপি সাধারণ মানুষের জন্য রাজনীতি করেনা। তাদের আন্দোলন পেট্রোল বোমা আর টকশোর মধ্যে সীমাবদ্ধ।
মৌন জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক মনিরুল হাসান শাহ আপেলের সঞ্চালনায় জেলা পরিষদের প্রশাসক এ্যাডভোকেট মমতাজুল হক, পৌর মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুজার রহমান, জেলা আইনজীবি সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট আলিমুদ্দিন বসুনিয়া, মৌন জেনারেল হাসপাতালের চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মশফিকুল ইসলাম রিন্টু বক্তব্য রাখেন।
এসময় সদর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার ফজলুল হক, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আরিফা সুলতানা লাভলী, সহকারী পুলিশ সুপার শফিউল ইসলাম, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহজানা পাশা, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আব্দুর রশিদ, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আব্দুল হালিম, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রাবেয়া আলিম, সাধারণ সম্পাদক হাসিনা আহমেদ, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট অক্ষয় কুমার রায়, নীলফামারী চেম্বার অব কর্মাস এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজের সভাপতি এস.এম শফিকুল আলম ডাবলু উপস্থিত ছিলেন। শেষে মন্ত্রী পিতা কেটে ৩০ শয্যা বিশিষ্ট মৌন জেনারেল হাসপাতালে আনুষ্ঠানিক উদ্বোণ করেন।
পরে মন্ত্রী  সরকারি কলেজ পাড়া জামে মসজীদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও ছমির উদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজের নবনির্মিত দ্বিতল ভবনের উদ্বোধন ও নীলফামারঅী সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক পুরস্কার বিতরণ এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগদান করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ