• মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ০৫:০৮ পূর্বাহ্ন |

বাংলাদেশের মেসির গল্প

sabina-1খেলাধুলা ডেস্ক: গত কয়েকবছরই যেন বিষয়টা নিয়মিত হয়ে দাঁড়িয়েছিল। মেয়েদের জাতীয় ফুটবলে একজনের পা থেকে আসছে ডজন ডজন গোল। অবাক করা বিষয়। ১৩টি, ১৫টি, ১০টি করে গোল নিয়মিত করে যাচ্ছে একটি মেয়ে। সতীর্থরা তাকে নাম দিয়েছিল বাংলাদেশের মেসি। অবশেষে এই মেসি পেলেন দারুন এক সুসংবাদ। বাংলাদেশ থেকে প্রথম কোন নারী ফুটবলার হিসেবে বিদেশে কোন লীগে খেলার আমন্ত্রণ পেয়েছেন সাবিনা খাতুন।

মাস তিনেক আগে এশিয়ার সেরা ৭ নারী ফুটবলারের তালিকায় নাম উঠেছিল সানজিদা আক্তারের। সানজিদার পর আরও বিরল সম্মান বয়ে আনলেন জাতীয় দল এবং মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেডের স্ট্রাইকার সাবিনা।

মালদ্বীপের পুলিশ ক্লাবের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। বুধবার সাবিনা যাচ্ছেন মালদ্বীপে। তার আগে আগামীকাল (মঙ্গলবার) আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সাবিনার মালদ্বীপে খেলার বিষয়টি বিস্তারিত জানাবে বাফুফের মহিলা ফুটবল কমিটি। মালদ্বীপের এ প্রতিযোগিতা শুরু হবে ১৪ মার্চ। চলবে ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত।

সাবিনার এ অর্জনে বড় অবদান বাফুফের মহিলা ফুটবল কমিটির ডেপুটি চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণের। মাসখানেক আগে মালদ্বীপের ওই ক্লাব থেকে যোগাযোগ করা হয় কিরণের সাথে। তিনিই সাবিনার মালদ্বীপে খেলার সব আয়োজন সম্পন্ন করেন। তবে মালদ্বীপের ক্লাবটির সঙ্গে সাবিনার চুক্তি এক মাসের।

সাবিনা এখন তার নিজ জেলা সাতক্ষীরায় আছেন। রাতেই রওয়ানা দেবেন ঢাকার উদ্দেশ্যে। মালদ্বীপে খেলার খবরটি জানার পর মোবাইল ফোনে সাবিনা বলেন, ‘এ সুযোগ আমার জন্য বিশাল এক প্রাপ্তি। তবে আমার সব কিছুই স্বার্থক হবে যদি আমি সেখানে ভাল পারফরমেন্স করতে পারি। মালদ্বীপে খেলাটা শুধু আমার জন্যই নয়, দেশের জন্যও। আমি ভাল খেলতে পারলে বাংলাদেশের নামটিই আগে উচ্চারণ হবে। সবাই বলবেন ‘বাংলাদেশের সাবিনা’। আমি সবার দোয়া চাই যেন সেখানে গিয়ে দেশের সুনাম অর্জন করতে পারি।’

২০০৮ সালে নিজ জেলা সাতক্ষীরার হয়ে জাতীয় নারী ফুটবলে অংশ নিয়েই নিজের প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছিলেন। এরপর ২০১০ সালে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের হয়ে তার অভিষেক ঢাকার ক্লাব ফুটবলে। সর্বশেষ খেলেছেন মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেডে। তিনি জাতীয় নারী ফুটবল দলের সহ অধিনায়ক।

১৯৭৫ সালের নভেম্বরে বাংলাদেশের কোনো ফুটবলার হিসেবে কাজী সালাউদ্দিনের অভিষেক হয়েছিল বিদেশের পেশাদার লিগে। বাংলাদেশের প্রথম ফুটবলার হিসেবে তিনি খেলেছিলেন হংকংয়ে, এফসি ক্যারোলিনে। এর পর কাজী সালাউদ্দিনের দেখিয়ে দেয়া পথে হেটেছেন অনেক ফুটবলার। তবে দীর্ঘ ৪০ বছর পর বাংলাদেশের ফুটবলে লেখা হচ্ছে নতুন ইতিহাস। প্রথম নারী ফুটবলার হিসেবে মালদ্বীপে খেলতে যাচ্ছেন জাতীয় দলের সহ অধিনায়ক সাবিনা খাতুন। দ্বীপরাষ্ট্রে তিনি খেলবেন পুলিশ ক্লাবের হয়ে। বুধবার সাবিনা ঢাকা ত্যাগ করবেন মালদ্বীপের উদ্দেশ্যে।

উৎস: বাংলামেইল


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ